মাভাবিপ্রবি বিশ্ববিদ্যালয়ে ভূমি অধিগ্রহণে সিদ্ধান্তের অবমাননার প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন

Feature Image

জেলা প্রতিনিধি, স্বাধীনবাংলা২৪.কম

টাঙ্গাইল থেকে আরিফ উর রহমান টগর: মাওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় বর্ধিতকরণের লক্ষে সাকরাইল ও সন্তোষ মৌজার ভূমি অধিগ্রহণে বর্তমান বাজারদরের দেড়গুণের পরিবর্তে প্রধানমন্ত্রী ঘোষিত ৩ গুণের দাবিতে করা মহামান্য হাই কোর্টের রীটের সিদ্ধান্তের অবজ্ঞা করে ৭ ধারা নোটিশ দিয়ে মহামান্য হাইকোর্টকে অবমাননার প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। সোমবার দুপুরে টাঙ্গাইল প্রেসক্লাব বঙ্গবন্ধু অডিটরিয়ামে এর প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন করেছে টাঙ্গাইল পৌর এলাকার সন্তোষের ক্ষতিগ্রস্থ ভূমি মালিক সমিতি।

সংবাদ সম্মেলনের লিখিত বক্তব্যে জানা যায়, টাঙ্গাইল পৌর এলাকার সাকরাইল ও সন্তোষের ৯৬জন মালিকের বসত ভিটা এবং আবাদী প্রায় ১৩ একর জমি মাওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় বর্ধিতকরণের লক্ষে সরকার কর্তৃক এল.এ কেস নং ১১/২০১৬-২০১৭ এর মাধ্যমে অধিগ্রহণ প্রক্রিয়া চলছে। এরই মধ্যে পুরাতন আইনকে পরিবর্তন করে নতুন আইনের মাধ্যমে ক্ষতিপূরণের পরিমান বর্ধিত করণ আইন চলতি বছরের ১৪ সেপ্টেম্বর জাতীয় সংসদে পাশ হয়। যে কারণে ক্ষতিগ্রস্থ ভূমি মালিক সমিতির উদ্যোগে সরকার কর্তৃক এল.এ কেস নং ১১/২০১৬-২০১৭ বিলম্বিত করার জন্য হাইকোর্টে রীট পিটিশন নং-১২৬৬৩/২০১৭ দায়ের করা হয়। যাতে জাতীয় সংসদে আইন পাশ করার পূর্বে আমাদের বসতবাড়ী এবং আবাদী জমি অন্যায়ভাবে অধিগ্রহণ করা না হয়। এ পিটিশনের ভিত্তিতে গত চলতি বছরের ২৪ আগস্ট তারিখে শুনানী অন্তে রুল নাই সাই ইস্যুর মাধ্যমে এল.এ কেসটিতে ৪ মাসের জন্য স্থগিতাদেশ প্রদান করেন। এ আদেশপত্র জেলা প্রশাসক বরাবর প্রদান করা হয়। এ স্বত্তেও জেলা প্রশাসক মহামান্য হাইকোর্টে আদেশকে অমান্য করে ১৪ সেপ্টেম্বর পুনরায় ৭ ধারার নোটিশ প্রদান করেন। জেলা প্রশাসকের দেয়া এ নোটিশ দেশের সর্বোচ্চ আদালত এবং জাতীয় সংসদে পাশকৃত আইনের প্রতি অবজ্ঞা প্রদানের সামিল বলেও দাবি করেন তারা।

আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন সন্তোষের ক্ষতিগ্রস্থ ভূমি মালিক সমিতির সভাপতি আলহাজ্ব আব্দুল আজিজ, সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা হযরত আলী, সমিতির সদস্য আব্দুল মালেক, গফুর সিকদারসহ বিভিন্ন জমির মালিকগণ।

এ প্রসঙ্গে টাঙ্গাইলের জেলা প্রশাসক খান মোঃ নুরুল আমিন বলেন, আমি মাত্র কয়েকদিন পূর্বে এ জেলার প্রশাসক হিসেবে যোগদান করেছি। এ জমি অধিগ্রহণের বিষয়টি আমি যোগদানের পরেই জেনেছি। তবে মাওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় বর্ধিতকরণের লক্ষে সাকরাইল ও সন্তোষ মৌজার ভূমি অধিগ্রহণে বর্তমান বাজারদরের দেড়গুণ ক্ষতিপূরণ দেয়ার আশ্বাস রয়েছে। তাদের দাবী অযৌত্তিক। এ ক্ষতিপূরণ বৃদ্ধি বা কমানোর আমি কেই নয়। ক্ষতিপূরণ দেড়গুণের পরিবর্তে তিনগুণ দেয়ার আইন এখন পাশ হয়নি। আইন পাশ করে গেজেট প্রকাশ করার পরই আইন পাশ হবে। সম্পূর্ণ আইন অনুসরণ করেই ৭ ধারার নোটিশ প্রদান করা হয়েছে। এ ক্ষেত্রে মহামান্য আদালত অবমাননা করার মত কিছুই ঘটেনি বলেও জানান তিনি।

স্বাধীনবাংলা২৪.কম/এমআর

আরো খবর »