আদিতমারীতে মাদক ব্যবসায়ীর পিটুনিতে দু’যুবক আহত

Feature Image

লালমনিরহাট থেকে জিন্নাতুল ইসলাম জিন্নাঃ  লালমনিরহাটের আদিতমারীতে দু’যুবককে পিটিয়ে আহত করেছে এলাকার চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ীরা। সোমবার রাতে উপজেলার মহিষখোচা বাজারে এ ঘটনা ঘটে। আহতরা হলেন ঃ উপজেলার মহিষখোচা ইউনিয়নের গোবরধন স্পার সংলগ্ন এলাকার বাসিন্দা দেলোয়ার হোসেনের ছেলে মাইদুল ইসলাম (২৫) ও একই এলাকার বজলার রহমানের ছেলে জুয়েল ইসলাম (২৩)। স্থানীয়রা আহতদের উদ্ধার করে রাতেই উপজেলা হাসপাতালে ভর্তি করে করেছেন।

জানাগেছে, ঢাকার কেরাণীগঞ্জ পোশাক কারখানায় কাজ করেন উপজেলার মহিষখোচা ইউনিয়নের গোবরধন স্পার সংলগ্ন এলাকার বাসিন্দা মাইদুল ইসলাম ও জুয়েল। ঈদের ছুটিতে বাড়িতে আসেন তারা। ঢাকা থেকে বাড়িতে ছুটিতে এসে ঈদের পরে এলাকায় একটি প্রীতি ফুটবল ম্যাচের আয়োজন করেন তারা। কিন্তু এতে বাঁধ সাধেন একই এলাকার বাসিন্দা মাদক ব্যবসায়ী মতিন (৩৫) ও বাবু (৩৪)। তারা প্রীতি ফুটবল ম্যাচ বন্ধ করে দেয়। এ নিয়ে উভয়ের মধ্যে বেশ কয়েকবার কথা কাটাকাটিও হয়।

সোমবার রাতে মহিষখোচা বাজারের উদ্দ্যেশে মাইদুল ও জুয়েল বাড়ি থেকে বের হওয়া মাত্রই এ ঘটনার জের ধরে তাদের পথরোধ করে মাদক ব্যবসায়ী মতিন ও বাবু এলোপাতাড়ি মারধর করেন। তাদের চিৎকারে স্থানীয়রা ছুটে এলে মাদক ব্যবসায়ীরা পালিয়ে যায়। পরে তাদের আহত অবস্থায় উদ্ধার করে উপজেলা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মাইদুল ও জুয়েল জানান, মাদক সেবন ও মাদক ব্যবসা ছেড়ে দিতে বলায় তারা ক্ষিপ্ত হয়ে পরিকল্পিতভাবে তাদের উপর এ হামলা করা হয়েছে।
গোবরধন ওয়ার্ডের বাসিন্দা মনতাজ আলী অভিযোগ করে বলেন, মতিন ও বাবু এলাকার চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী। মাদক ব্যবসায় বাঁধা দেয়ায় কয়েক দিন আগে তার ছেলেকেও মারধর করা হয়েছে বলে তিনি দাবী করেন।

আদিতমারী হাসপাতালের সহকারী চিকিৎসক আব্দুস ছালাম জানান, মাইদুলের চোখে ও মুখে গুরুতর আঘাত করা হয়েছে। জুয়েলের শরীরেরও বিভিন্ন স্থানে ফোলা জখম রয়েছে।
আদিতমারী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) হরেশ্বর রায় বলেন, কেরামবোড খেলাকে কেন্দ্র করে মারামারি হয়েছে শুনেছি। রাতেই ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। তবে এখন পর্যন্ত কেউ অভিযোগ দেয়নি, অভিযোগ পেলে পুলিশ বিষয়টি গুরুত্বসহকারে দেখবেন বলেও জানান তিনি।

আরো খবর »