পুরুষদের এক-তৃতীয়াংশ বুদ্ধি রয়েছে মহিলাদের

Feature Image

পুরুষদের তুলনায় মহিলাদের বুদ্ধি অনেকটাই কম। বিশেষ করে যখন শপিং-এ যান তাঁদের বুদ্ধি পুরুষদের তুলনায় এক-তৃতীয়াংশ হয়ে যায়। তাই মহিলাদের কখনওই গাড়ি চালানোর জন্য অনুমতি বা লাইসেন্স দেওয়া উচিত নয়। মহিলাদের সম্পর্কে এমন বিতর্কিত মন্তব্য করে তীব্র রোষের মুখে পড়েছেন সৌদি আরবের ধর্মগুরু সাদ-আল-হিজিরি। ঘটনাটি সৌদি আরবের দক্ষিণ প্রদেশের আসিরের।

সরকারি সূত্রে খবর, এমন অবিবেচকের মতো মন্তব্য করায় হিজিরিকে সমস্ত ধর্মীয় কাজকর্ম থেকে বহিষ্কার করা
হয়েছে। তাঁর এই মন্তব্য ঘিরে সোশ্যাল মিডিয়া উত্তাল। প্রশ্ন ওঠে এক জন ধর্মগুরু মহিলাদের সম্পর্কে এমন অবমাননাকর মন্তব্য করলেন কোন হিসেবে? হিজিরির ওই মন্তব্যের বিরোধিতা করে নারী অধিকার রক্ষা সমিতি তাঁকে বহিষ্কারের দাবি জানায়। সমাজের অন্য মহল থেকেও আওয়াজ ওঠে। তবে কট্টরপন্থীরা ধর্মগুরুর এই মন্তব্যকে সমর্থন জানিয়েছেন।

সৌদি আরব মূলত পুরুষতান্ত্রিক। সেখানে মহিলাদের অনেক কাজকর্ম থেকেই বিরত থাকার নিদান চালু আছে। রয়েছে ধর্মীয় গুরুদের নানা রকম ফতোয়া। কিন্তু এই চিরাচরিত প্রথা থেকে সম্প্রতি বেরিয়ে আসতে চেষ্টা শুরু হয়েছে সেখানে। মহিলাদের বাইরে বেরোনো, গাড়ি চালানোর মতো কয়েকটি বিষয়ে রাশ হালকা করার চিন্তাভাবনাও শুরু হয়ে গিয়েছে। দেশ যখন এমন একটা পথে হাঁটতে শুরু করেছে, তখনই এই ধর্মগুরুর বিতর্কিত মন্তব্য সমালোচনার ঝড় তুলবে এটাই স্বাভাবিক, বলছেন বিশেষজ্ঞরা।

আসিরের গভর্নরের এক মুখপাত্র জানান, হিজিরিকে বহিষ্কার করে সমাজের কাছে এই বার্তাই পৌঁছে দেওয়ার চেষ্টা করা হয়েছে যে, বৈষম্যমূলক আচরণ এবং নারীদের খাটো করে কথা বললে কাউকে রেয়াত করা হবে না। ভবিষ্যতে কোনও ধর্মগুরু যদি এমন মন্তব্য করেন তাঁদের বিরুদ্ধেও কঠোর পদক্ষেপ করবে সরকার।
সাবক নামে সে দেশের এক অনলাইন সংবাদমাধ্যমের রিপোর্টে প্রকাশিত হয়েছে, তীব্র প্রতিবাদ ও রোষানলে পরে বহিষ্কারের পর স্বপক্ষে যুক্তি দিতে গিয়ে হিজিরি বলেন, ভুল করে ওই মন্তব্য করে ফেলেছেন তিনি।

আরো খবর »