কমেছে চালের দাম, কমবে আরও

Feature Image

স্বাধীনবাংলা২৪.কম

ঢাকা: পাইকারি বাজারে চালের দাম কমার পর কমতে শুরু করেছে খুচরা বাজারেও। সামনের দিনে আরও কমবে বলে জানিয়েছেন ব্যবসায়ীরা। তবে পাইকারিতে যে হারে দাম কমেছে, খুচরা বাজারে সেভাবে কমেনি।

রাজধানীর বিভিন্ন খুচরা বাজারে খোঁজ নিয়ে দেখা গেছে, প্রকার ও মান ভেদে দুই থেকে পাঁচ টাকা কমেছে। গত তিন-চার দিনে পাইকারি বাজারে মোটা চালের দাম কমেছে কেজিপ্রতি প্রায় পাঁচ টাকা, কিন্তু খুচরায় কমেছে মাত্র দুই টাকা।

অন্যদিকে মিনিকেট বা চিকন চালের দাম পাইকারিতে প্রায় তিন টাকা কমলেও খুচরায় কমেছে এক টাকা। রাজধানীর মিরপুর, আগারগাঁও, শান্তিনগর, তালতলা ও মোহাম্মদপুর বাজারেরে খুচরা ব্যবসায়ীরা বলছেন, চালের দাম কমতে শুরু করেছে, সামনের দিনে আরও কমবে।

সরেজমিনে দেখা গেছে, পাইকারি বাজারের চেয়ে খুচরা বাজারে দামের পার্থক্য কিছুটা কমেছে। গত তিন-চার দিনে পাইকারি ও খুচরা বাজারে দামের এই পার্থক্য তৈরি হয়েছিল। পাইকারি বাজারে মিনিকেট চাল বিক্রি হচ্ছে ৫৭-৫৯ টাকায়, যা খুচরা বাজারে বিক্রি হচ্ছিল ৬৫-৬৬ টাকায়। তবে আজ (রোববার) দাম কমে বিক্রি হচ্ছে ৬৩ থেকে ৬৪ টাকায়।

নাজির শাইল চাল পাইকারিতে ৬৪-৬৬ টাকায়, খুচরায় বিক্রি হচ্ছিল ৬৬-৭০ টাকায়। এখন বিক্রি হচ্ছে কেজিপ্রতি ১-২ টাকা কমে। রাজধানীর বাবু বাজার ও বাদামতলীতে পাইকারি বাজারে আটাশ চাল খুচরাতে বিক্রি হচ্ছে ৫৪-৫৬ টাকায়, ঊনত্রিশ চাল ৫৪-৫৬ টাকায়, স্বর্ণা বিক্রি হচ্ছে ৫০-৫২ টাকায়, মোটা চাল (হাইব্রিড) খুচরা বাজারে ৪৫-৪৬ টাকায়।

মিরপুরের মুসলিম বাজারের খুচরা ব্যবসায়ী আরিফ হোসেন বলেন, পাইকারিতে দাম কমেছে, কিন্তু পরিবহন ব্যয়সহ অন্যান্য কারণে সেভাবে আমরা দাম কমাতে পারিনি। তবে ক্রেতাদের জন্য এটা ভালো সংবাদ যে দাম কমতে শুরু করেছে। সামনে হয়তো কমে যাবে।

স্বাধীনবাংলা২৪.কম/এমআর

আরো খবর »