গণভোটে স্বাধীনতার পক্ষে ইরাকি কুর্দিদের রায়

Feature Image

স্বাধীনবাংলা২৪.কম

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: গণভোটে ইরাকি কুর্দিরা স্বাধীনতার পক্ষে ভোট দিয়েছে।

ইরাকে কুর্দিদের নিয়ন্ত্রণে থাকা আধাস্বায়ত্তশাসিত অঞ্চল নিয়ে স্বাধীন দেশ গঠনের পক্ষে জনমত জরিপের অংশ হিসেবে সোমবার একপক্ষীয় গণভোট হয়। এ ভোটের তুমুল বিরোধিতা করে ইরাক সরকার।

ইরাকের উত্তরাঞ্চলে আধাস্বায়ত্তশাসিত কুর্দিস অঞ্চলের রাজধানী এরবিলে নির্বাচনী কর্মকর্তারা এক সংবাদ সম্মেলনে জানায়, ৩৩ লাখ ৫ হাজার ৯২৫ জন ভোট দিয়েছে, যার মধ্যে ৯২ দশমিক ৭৩ শতাংশ স্বাধীনতার পক্ষে ‘হ্যাঁ’ ভোট দিয়েছে। তবে ওই অঞ্চলের মোট ভোটের ৭২ দশমিক ৬১ শতাংশ ভোট গৃহীত হয়েছে।

কেন্দ্রীয় বাগদাদ সরকারসহ প্রতিবেশী তুরস্ক ও ইরান এ গণভোটের বিরোধিতা করেছে। ইরাক থেকে কুর্দিস অঞ্চলের আলাদা হয়ে যাওয়ার পক্ষে বিপক্ষে তারা। এ ছাড়া যুক্তরাষ্ট্র ও যুক্তরাজ্য কুর্দি নেতাদের গণভোট না করার আহ্বান জানিয়েছিল।

তবে গণভোটের পর এরবিলে স্বাধীনতার পক্ষে ডাক আসার অপেক্ষায় রয়েছে সেখানকার কুর্দিরা। তারা সবাই হ্যাঁ ভোটের পক্ষে এবং কুর্দি জনগণের মধ্যে সন্তোষ বিরাজ করছে। কিন্তু এত সহজেই স্বাধীনতা আসবে বলে মনে করছে না কুর্দিরা। তারা স্বীকার করছে, এখনো অনেক সমস্যা আছে।

কুর্দিস আঞ্চলিক সরকারের প্রেসিডেন্ট মাসুদ বারজানি বলেছেন, এই ভোটের ফলে শিগগিরই স্বাধীনতার ঘোষণা আসছে না। তবে সমঝোতার দুয়ার খোলা রাখছে।

ইরাকের প্রধানমন্ত্রী হায়দার আল-আবাদি ‘অবৈধ’ উল্লেখ করে এ গণভোট প্রত্যাখ্যান করেছেন। তিনি বুধবার বলেছেন, গণভোটের ফলাফল মাথায় রেখে কোনো আলোচনা হতে পারে না। তিনি বলেছেন, পুরো কুর্দিস্তান অঞ্চলে সংবিধান মোতাবেক আইন চালু করা হবে।

তিনটি প্রশাসনিক অঞ্চল নিয়ে আধাস্বায়ত্তশাসিত কুর্দিস আঞ্চলিক সরকার গঠিত। সোমবার এ তিন অঞ্চলেই গণভোট হয়। এ ছাড়া বিতর্কিত তেলসমৃদ্ধ কিরকুক প্রদেশ ও নিনেভেহ প্রদেশের কিছু এলাকায় ভোট হয়। বুধবার ইরাকের পার্লামেন্ট তেলক্ষেত্রের দখল নিতে কিরকুকে সেনা মোতায়েন আহ্বান জানায়।

এদিকে, ইরাকের আহ্বানে কুর্দি অঞ্চলে সরাসরি বিমানের ফ্লাইট বন্ধ করেছে ইরান ও লেবানন। এ ছাড়া স্বাধীনতার পক্ষে কুর্দিদের সোচ্চার জনমত থাকলেও আঞ্চলিক স্থিতিশীলতার কারণ দেখিয়ে তাদের শান্ত থাকার আহ্বান জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র।

স্বাধীনবাংলা২৪.কম/এমআর

আরো খবর »