এখনো যেসব নিষেধাজ্ঞার বেড়াজালে বন্দী সৌদি নারীরা

Feature Image

পোশাক পরার ধরন, পছন্দ-অপছন্দের বিষয়ে এখনো স্বাধীন নন সৌদি নারীরা। সম্প্রতি দেশটির সরকার নারীদের গাড়ি চালানোর অধিকার দেয়।
তারপর জীবনের নানা বিষয়ে তারা এখনো নিষেধাজ্ঞার বেড়াজালে বন্দী। অন্য সব দেশে নারীরা যা সহজেই করতে পারে তা সৌদিতে কল্পনা করাই মুশকিল। যেমন সৌদি নারীরা পুরুষদের সঙ্গে অবাধে মেলামেশা করতে পারেন না। জনসেবামূলক প্রতিষ্ঠান যেমন ব্যাংক, হাসপাতাল কিংবা রেস্টুরেন্টের ক্ষেত্রে তা আলাদা। কিন্তু এসব ক্ষেত্রেও নারীদের জন্য আলাদা ব্যবস্থা রাখার ওপর জোর দেয়া হয়।

সৌদি নারীরা নিজের পছন্দসই কাপড় পরতে পারেন না। তাদের অবশ্যই কালো রঙের কাপড় দিয়ে সারা শরীর আবৃত করে রাখতে হয়। যে পোশাকটি অবশ্যই ঢিলেঢালা হতে হবে। সৌদি নারীরা চাইলে স্বাধীনভাবে ব্যবসা করতে পারে না। নিজের সক্ষমতা থাকলেও তাকে বাধ্যতামূলকভাবে পুরুষের সাহায্য নিতে হয়। স্বামী তালাক দিলে নির্দিষ্ট বয়সের (ছেলেদের জন্য ৬ বছর ও মেয়েদের জন্য ৯) পর সন্তানকে আর নিজের কাছে রাখতে পারেন না সৌদি নারীরা।

সৌদি আরবে নারীর জাতীয় পরিচয়পত্র বা পাসপোর্টের জন্য আবেদন করতে হলেও পরিবারের পুরুষ সদস্যের অনুমতির প্রয়োজন হয়। সৌদি কোনো নারীর একক সাক্ষ্য আদালতে গ্রহণযোগ্য নয়। অবশ্যই দুইজন নারীকে একত্রে সাক্ষ্য দিতে হবে এবং তাদের সাক্ষ্য একজন পুরুষের সাক্ষ্যের সমমর্যাদা পাবে।

আরো খবর »