কাশিয়ানীতে ইউপি সদস্যসহ চারজনের বিরুদ্ধে মামলা

Feature Image

গোপালগঞ্জঃ  গোপালগঞ্জের কাশিয়ানীতে অস্ত্রের মুখে গৃহবধূকে ধর্ষণের অভিযোগে ইউপি সদস্যসহ ৪ জনের বিরুদ্ধে ধর্ষণ মামলা দায়ের করা হয়েছে।
গত ২৬ সেপ্টেম্বর ওই গৃহবধূ বাদী হয়ে গোপালগঞ্জ নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে একটি নালিশী পিটিশন দায়ের করেন।

ওই আদালতের বিচারক গোপালগঞ্জের জেলা ও দায়রা জজ মোঃ দলিল উদ্দিন পিটিশিনটি গ্রহন করে কাশিয়ানী থানার ওসিকে মামলাটি এফআইআর করার নির্দেশ দেন। বৃহস্পতিবার (২৮.০৭.১৭) কোর্টের আদেশের কপি হাতে পেয়ে কাশিয়ানী থানার ওসি মামলাটি এফআইআর করেন।

মামলার আসামীরা হলেন ধীরাইল গ্রামের মৃত আলাউদ্দিন মোল্যার ছেলে ও বেথুড়ী ইউনিয়নের ২ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য ইমদাদুল হক মোল্যা (৪০), সাধুহাটি গ্রামের বাবলু মোল্যার ছেলে রফিক মোল্যা (২৫), আক্তার মোল্যার ছেলে ইবাদ মোল্যা (৪০) ও হিটু মোল্যার ছেলে স্বপন মোল্যা।
মামলার বিবরণে জানা গেছে, ওই গৃহবধূর স্বামী বিশেষ কাজে কয়েকদিনের জন্য বাড়ীর বাইরে যায়। এ সুযোগে গত ২৫ সেপ্টেম্বর গভীর রাতে ইউপি সদস্য ইমদাদুলসহ অন্যান্য আসামীরা গৃহবধূর ঘরের মধ্যে প্রবেশ করে ধর্ষণের চেষ্টা করে। গৃহবধূ বাঁধা দিয়ে চিৎকার দিতে গেলে আসামীরা ধারালো অস্ত্রের মুখে তাকে জিম্মি করে। পরে ওই গৃহবধূকে আসামীরা পালাক্রমে ধর্ষণ করে পালিয়ে যায়। স্থানীয় লোকজন ওই গৃহবধূকে গুরুত্বর আহত অবস্থায় উদ্ধার করে গোপালগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করে।

এ ব্যাপারে ইউপি সদস্য ইমদাদুল হক মোল্যা তার বিরুদ্ধে আনিত ধর্ষণের অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, আমার প্রতিপক্ষ আমাকে ও আমার সমর্থকদের ফাঁসাতে মিথ্যা ধর্ষণের অভিযোগ এনে মামলা করেছে।

কাশিয়ানী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা একেএম আলীনুর হোসেন বলেন, আদালতের নির্দেশনা হাতে পেয়েছি। মামলাটি রুজু হয়েছে। আসামীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

আরো খবর »