অবিশ্বাস্য খাদ্য রসিকদের গল্প!

Feature Image

খাবার জিনিসের তালিকায় পছন্দের খাবারের অভাব তো অভাব নেই। তবু অনেকেই সেই সব সুস্বাদু খাবার খেতে পছন্দ করেন না। উল্টে পেট ভরান এমন সব জিনিস দিয়ে যে গুলিকে আর যাই হোক খাবার বলা চলে না। বিশ্বে এমন অনেক মানুষ আছেন যারা এমনসব খাবার খেয়ে থাকেন যেগুলির কথা শুনলে আপনি অনেকটা অবাক হয়েই যাবেন। চলুন জেনে নেই সেসব খাদ্য রসিকদের গল্প-

১) দেয়ালের শুঁকনো রং:
আমেরিকার ডেট্রয়েটের বাসিন্দা নিকোল গত সাত বছর ধরে খিদে পেলেই রং খেয়ে থাকেন। কারণ তার মনে হয় শুকিয়ে যাওয়া রঙের থেকে সুস্বাদু খেতে এই পৃথিবীতে আর কিছু নেই। নিকোলের নিজের বাড়িতে যখন দেওয়ালের রং সব ফুরিয়ে যায়, তখন সে তার প্রতিবেশীদের বাড়িতে গিয়ে রং খাওয়া শুরু করেন।

২) নীল পলিথিন ব্যাগ:
২৩ বছর বয়সি এই ছেলেটির নাম রবার্ট। ছেলেটি ক্ষিদে পেলেই নীল প্লাস্টিকের ব্যাগ খায়। সেই কারণে সে শহরের বিভিন্ন প্রান্তে ঘুরে বেরায় নীল ব্যাগ সংগ্রহ করার জন্য।

৩) ক্লে মাস্ক:
বয়স ৪০ বছর বয়সী এই মহিলার নাম নাতাশা। মহিলার যখনই ক্ষিদে পায়, তখনই সে ক্লে মাস্ক খেতে শুরু করেন। গত ৭ বছর ধরে তিনি এই খাবারই খাচ্ছেন। ক্লে মাস্ক মূলত ত্বকের ফেসিয়াল করার সময় কাজে লাগে

৪) টায়ার:
১৯ বছরের এই মেয়েটির নাম অ্যালিসন। গত ৬ বছর ধরে এই মেয়েটি শুধু টায়ার খেয়েই বেঁচে আছে। অ্যালিসনের যখনই ক্ষিদে পায় তখনই চুইংগামের মতো টায়ার চিবাতে শুরু করে।

৫) ডিয়োডরেন্ট:
নিকোল নামে ১৯ বছরের এই তরুণীর খাদ্য় তালিকায় ডিয়োডরেন্ট ছাড়া আর কিছুই নেই। সেই ছোট বেলা থেকেই দিনে প্রায় হাফ বোতল ডিয়োডেরন্ট খেয়ে পেট ভরায় এই মেয়েটি।

আরো খবর »