রাজাপুরে ঝুঁকি নিয়ে সাঁকো দিয়ে ব্রীজ পারাপার

Feature Image

রাজাপুর (ঝালকাঠি):  ঝালকাঠির রাজাপুরের গালুয়া ইউনিয়নের পশ্চিম পুটিয়াখালির শাহামিয়ার হাট এলাকার বড় খালের ওপরের আয়রন ব্রীজটি দীর্ঘ ১২ বছর ধরে ভাঙ্গা জরার্জিন অবস্থায় রয়েছে। বর্তমানে ওই ব্রীজের ওপর স্থানীয়রা বাঁশ ও সুপাড়ি গাছ দিয়ে সাঁকো তৈরি করে জীবন ঝুঁকি নিয়ে ব্রীজ পারাপার হতে হচ্ছে।

 

ফলে সংশ্লিষ্ট এলাকার শাহামিয়ার হাটে আসা-যাওয়া মানুষ, ৪ টি বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীসহ এলাকার সর্বস্তরের মানুষ চরম ভোগান্তি পোহাচ্ছেন। ব্রীজটি পূুর্ন নির্মাণ বা সংস্কারের কোন উদ্যোগ নেই সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের। বর্তমানে এলাকাবাসী ব্রীজটির এ্যংাগেলের উপরে একাধিক শুপারি গাছ, বাঁেশর হাতল ও গাছের গুড়ি দিয়ে সাকো স্থাপন করে এই বর্ষা মৌসুমে জীবনের ঝুকি নিয়ে পারাপার হচ্ছেন। পারাপার হতে গিয়ে প্রায়ই নানা দুর্ঘটনার ঘটনা ঘটছে।

 

যে কোন সময় আরও বড় ধরনের দুর্ঘটনা ঘটতে পারে। স্থানীয় শহীদ, হারুন ও সাগরসহ একাধিক লোক অভিযোগ করে বলেন, ব্রিজটি ভেঙ্গে চলাচলের অনুপযোগী হওয়ায় স্থানীয় উদ্যোগে একাধিক সুপাড়ি গাছ, বাশ ও গাছের গুড়ি ক্রয় করে ওই ব্রীজের উপরে স্থাপন করে স্থানীয় শাহামিয়ার হাটের ক্রেতা-বিক্রেতারা, গালুয়া দুর্গাপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়, গালুয়া বালিকা মাধ্যমিক বিদ্যালয়, গালুয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, পশ্চিম পুটিয়াখালি দারুল ইসলাম সিনিয়র মাদ্রাসার কয়েক হাজার শিক্ষার্থী, এলাকার নারী, শিশু ও বৃদ্ধসহ প্রতিদিন দুই সহ¯্রাধিক লোক জীবনের ঝুকি নিয়ে পারাপার হচ্ছেন।

 

স্থানীয় সাংসদ বিএইচ হারুনের নিজ ইউনিয়নের এ ব্রীজটি পুনঃনির্মানের দাবি জানিয়েছেন। উপজেলা এলজিইডি প্রকৌশলী লুৎফর রহমান জানান, খোজ নিয়ে দেখা হচ্ছে এবং ব্রীজটি পুনঃনির্মানের জন্য উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের অবহিত করা হবে।

আরো খবর »