সেনাবাহিনীর অধীনে নির্বাচন চায় মুসলিম লীগ

Feature Image

স্বাধীনবাংলা২৪.কম

ঢাকা: আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে সংসদ বিলুপ্ত করে সেনাবাহিনীর অধীনে নির্বাচন চায় বাংলাদেশ মুসলিম লীগ। নির্বাচনের তিন মাস আগে বর্তমান সংসদ বিলুপ্ত ও নির্বাচনের এক সপ্তাহ আগে বিচারকি ক্ষমতাসহ সেনাবাহিনী মোতায়েনের দাবি জানিয়েছে দলটি।

সোমবার রাজধানীর আগারগাঁওস্থ নির্বাচন ভবনে নির্বাচন কমিশনের (ইসি) সঙ্গে অনুষ্ঠিত মতবিনিময় সভায় এ দাবি জানান তারা। প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নুরুল হুদার সভাপতিত্বে এ মতবিনিময় সভায় অন্যান্য নির্বাচন কমিশনাররা ছাড়াও ইসির ভারপ্রাপ্ত সচিব উপস্থিত ছিলেন। ১৮ সদস্য বিশিষ্ট দলটির নেতৃত্ব দেন দলের মহাসচিব কাজী আবুল খায়ের।

এ পর্যন্ত ১৯টি দলের সঙ্গে মতবিনিময় করল সাংবিধানিক প্রতিষ্ঠানটি। এ ছাড়া আজ বিকেল তিনটায় বাংলাদেশ খেলাফত আন্দোলনের সঙ্গে সংলাপ করবে ইসি।

মতবিনিময় সভায় দলটি ২৪টি লিখিত দাবি জানায়। এ গুলোর মধ্যে রয়েছে, ইসিতে নিবন্ধিত প্রত্যেকটি দলের একজন প্রতিনিধি নিয়ে নির্বাচনকালীন সরকার ব্যবস্থা প্রবর্তন। কাস্টিং ভোটের পরিমাণ ৫০ শতাংশের কম হলে আবার নির্বাচনের ব্যবস্থা করারও দাবি জানায় দলটি।

এ ছাড়াও দলগুলো অন্যান্য দাবির মধ্যে রয়েছে ইভিএম ব্যবহার না করা, প্রতিটি কেন্দ্রে সিসি ক্যামেরা বসানো, না ভোটের ব্যবস্থা না রাখা, জোটবদ্ধভাবে নির্বাচন করলেও দলের নিজ নিজ প্রতীকে নির্বাচন করা বাধ্যতামূলক করা, দলের সঙ্গে সংশ্লিষ্টদের নির্বাচনী দায়িত্ব না দেয়া, রিটার্নিং কর্মকর্তাদের দায়িত্ব জেলা প্রশাসকের পরিবর্তে অতিরিক্ত জেলা জজদের দেয়ার দাবি জানানো হয়।

আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচন উপলক্ষে অংশীজনদের সঙ্গে সংলাপ শুরু করে ইসি। এরই ধারবাহিকতায় এই বৈঠক হয়। ৩১ জুলাই সুশীল সমাজের প্রতিনিধি, ১৬ ও ১৭ আগস্ট গণমাধ্যম প্রতিনিধিদের সঙ্গে মত বিনিময় করেছে ইসি। ২৪ আগস্ট থেকে দলগুলোর সঙ্গে মত বিনিময় শুরু হয়েছে। এ পর্যন্ত ৮টি রাজনৈতিক দলের সঙ্গে সংলাপ করল ইসি।

স্বাধীনবাংলা২৪.কম/এমআর

আরো খবর »