অবশেষে ধরা পড়লেন হানিপ্রীত

Feature Image

স্বাধীনবাংলা২৪.কম

নিউজ ডেস্ক: অবশেষে আটত্রিশ দিন পর পুলিশের হাতে ধরা পড়লেন হানিপ্রীত ইনসান। তিনি জেলবন্দি ধর্ষক বাবার ৩৭ বছর বয়সি ‘পরি’(মেয়ে)।

ভারতের আনন্দবাজার পত্রিকার খবরে বলা হয়, অবশেষে মঙ্গলবার ধরা পড়লেন এক মাসের ওপর পালিয়ে থাকা হানিপ্রীত।

২৫ আগস্ট জোড়া ধর্ষণের মামলায় রাম রহিমের ২০ বছর কারাদণ্ড ঘোষণার দিন থেকেই ফেরারি ছিলেন হানিপ্রীত।

তার বিরুদ্ধে অভিযোগ, আদালত থেকে জেলে যাওয়ার পথে বাবাকে নিয়ে পালানোর ছক কষেছিলেন।

সাজা ঘোষণার দিন ভারতের পঞ্চকুলা, সিরসাসহ হরিয়ানার বিভিন্ন জায়গায় মারামারি ও দেশদ্রোহের অভিযোগও দায়ের করা হয় তার বিরুদ্ধে।

হরিয়ানা পুলিশের ‘মোস্ট ওয়ান্টেড’ তালিকার শীর্ষে উঠে আসে প্রিয়াঙ্কা তানেজা ওরফে হানিপ্রীতের নাম। কিন্তু কিছুতেই ধরা যাচ্ছিল না তাকে।

মঙ্গলবার সকালে হঠাৎ টিভির পর্দায় ভেসে ওঠে হানিপ্রীতের মুখ।

ফোঁপাতে ফোঁপাতে তিনি বলেন, ‘বাবা কি মেয়ের মাথায় হাত রাখতে পারেন না? মেয়ে কি বাবাকে ভালবাসতে পারে না? আমাদের পবিত্র সম্পর্ক নিয়ে যেভাবে কুৎসা ছড়ানো হচ্ছে, তাতে আমার মন ভেঙে গেছে!’

রাম রহিমকে গ্রেফতারের দিন পুলিশ-প্রশাসনের ভূমিকা নিয়েও প্রশ্ন তোলেন তিনি। বলেন, ‘হরিয়ানা সরকার নিরাপত্তা দিয়েছিল বলেই তো আমি আদালত বা জেলের মতো জায়গায় যেতে পেরেছিলাম!’

হানিপ্রীত জানান, এখন আদালতে গিয়ে আত্মসমর্পণ করার কথা ভাবছেন। ‘তবে মন শক্ত করতে আরও কয়েক দিন সময় লাগবে।’

পুলিশের দাবি, সাক্ষাৎকার সম্প্রচারিত হওয়ার ঘণ্টা ছয়েকের মধ্যেই চণ্ডীগড় জাতীয় সড়কের কাছ থেকে গ্রেফতার করা হয় হানিপ্রীত ও তার সঙ্গী এক নারীকে।

স্বাধীনবাংলা২৪.কম/এমআর

আরো খবর »