নীলফামারীতে অসহায় এক গরীবের তিন শতক ভিটেমাটি দখল করতে প্রভাবশালীর নানা পায়তারা

Feature Image

নীলফামারী থেকে আব্দুর রাজ্জাকঃ  নীলফামারীতে অসহায় এক গরীব দিনমজুরের শেষ সম্বল ৩ শতক ভিটে মাটি দখল করতে নানাভাবে পায়তারা চালাচ্ছে এক প্রভাবশালী। সে প্রভাবশালী তার ভিটেমাটি দখল করতে জমির মালিক দিনমজুর পরিবার ও এলাকাবাসীর নামে একাধিক মিথ্যা মামলা দায়ের করে নানাভাবে হয়রানী করছে। এ অবস্থায় অসহায় দিনমজুর পরিবারকে ভিটেমাটি রক্ষায় সহায়তা করার অপরাধে এক স্কুল শিক্ষক সহ এলাকার অন্তত এক ডজন মানুষ ওই প্রভাবশালীর হাতে নানাভাবে হয়রানী হচ্ছেন এবং ওই প্রভাবশালীর ভয়ে এলাকায় এখন আর কেউ মুখ খুলছে না বলে অভিযোগে প্রকাশ।

 

চাঞ্চল্যকর এ ঘটনাটি ঘটেছে জেলার কিশোরগঞ্জ উপজেলার পানিয়ালপুকুর ফড়–য়া পাড়া গ্রামে। জানা যায, ওই এলাকার ছাবেদ আলীর ছেলে দিনমজুর লাল মিয়ার শেষ সম্বল রয়েছে তার ভিটে মাটির ৩ শতক জমি। ওই জমিতে লোলুপ দৃষ্টি পড়ে একই এলাকার প্রভাবশালী মোখলেছার রহমার টোরস সহ তার সহযোগীদের। সে ওই জমিটি দখল করতে দীর্ঘদিন ধরে নানাভাবে নানা পায়তারা করে আসছে। এরই জেরে সর্বশেষ ওই দিন মজুর পরিবারটির উপর হামলা চালায় ওই প্রভাবশালী ও তার সাঙ্গ পাঙ্গরা। এ হামলায় লাল মিয়ার পরিবার ও একাধিক এলাকাবাসী আহত হয়ে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়ে সুস্থ হয়।

 

অবস্থা বেগতকি দেখে ওই প্রভাবশালীরা পরবর্তীতে দিনমজুর লাল মিয়া ও তাকে সহায়তা করার অপরাধে এক স্কুল শিক্ষক সহ এলাকাবাসীর নামে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে নীলফামারী আদালতে একাধিক মামলা দায়েরের পাশাপাশি নানাভাবে হয়রানী করছেন। সরেজমিনে দেখা যায়, এলাকার ষাটোর্ধ সফিয়ার রহমান, মাজেদুল ইসলাম, ইয়াকুত আলী সহ অনেকে জানান, তার জমি দখল করার জন্য লাল মিয়া ও তার পরিবারকে মারধর করা হয়েছে এবং লাল মিয়ার পরিবারকে সহায়তার করার জন্য এলাকার এক স্কুল শিক্ষক সহ অন্তত একডজন এলাকাবাসীর নামে একাধিক মিথ্যা মামলা দায়ের করে চলছে ওই প্রভাবশালী পক্ষটি।

 

এসব মামলার কোন সত্যতা নেই দাবী করে এলাকাবাসী বিষয়টির সঠিক তদন্ত দাবী করেন। পক্ষটি দিন দিন বেপরোয়া হয়ে উঠছেন বলে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক অনেকেই জানান। এ ব্যাপারে কিশোরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা বজলুর রশীদ দিনমজুর লাল মিয়ার মারধরের মামলাটি তদন্তাধীন রয়েছে এবং আর কোন মামলার বিষয়ে তিনি কোন কিছু জানেন না বলে জানান।

আরো খবর »