ইবির ভর্তি আবেদন শুরু ১৫ অক্টোবর

Feature Image

ইবি থেকে এ আর রাশেদঃ  ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০১৭-১৭ শিক্ষাবর্ষের সম্মান প্রথম বর্ষের ভর্তি পরীক্ষার আবেদন শুরু ১৫ অক্টোবর শুরু হয়ে তা চলবে আগামী ১০ নভেম্বর পর্যন্ত। এবারই প্রথমবারের মত নেগেটিভ মার্কিং চালু করেছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। বুধবার বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষা কেন্দ্রীয় কমিটির এক সভায় এ সিদ্ধান্ত নেয় প্রশাসন।

মিটিংয়ে ভর্তি ফরমের মূল্য বৃদ্ধি, উপজাতি কোটা বৃদ্ধি, এবং ফলিত বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি অনুষদভুক্ত ছয়টি বিভাগের মোট আসনের সাথে ৩০টি আসন বৃদ্ধি, নতুন বিভাগসমূহের ইউনিট বন্টনসহ বিভিন্ন সিদ্ধান্ত নিয়েছে প্রশাসন।

বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রে জানা যায়, ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে আগামী ২৫ নভেম্বর থেকে ২৯ নভেম্বর পর্যন্ত মোট ৮ টি ইউনিটের অধীনে ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষের ¯œাতক (সম্মান) প্রথম বর্ষের ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। আগামী ভর্তি পরীক্ষার সার্বিক বিষয়ে আলোচনার জন্য উপাচার্য অধ্যাপক ড. হারুন-উর-রশিদ আসকারীর সভাপতিত্বে অনুষদীয় ডিন ও বিভাগীয় সভাপতিদের নিয়ে সভা কওে কেন্দ্রীয় ভর্তি পরীক্ষা কমিটি। সভায় আগামী ১৫ অক্টোবর থেকে ভর্তি পরীক্ষার আবেদন শুরু করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে প্রশাসন। চলবে ১০ নভেম্বর পর্যন্ত। এবছর ভর্তি পরীক্ষায় ভুল উত্তর প্রদানকারীর জন্য নেগেটিভ মার্ক চালু করা হয়েছে। চারটি ভুল উত্তরের জন্য প্রাপ্ত নম্বও থেকে এক মার্ক কাটা হবে ভর্তিচ্ছুর।

এদিকে ভর্তি আবেদন ফরমের মূল্য ৫০ টাকা বৃদ্ধি করে ৫০০ টাকা করা হয়েছে। এছাড়া আগামী ভর্তি পরীক্ষায় মোট ৫ টি উপজাতি কোটা বৃদ্ধি করে ১৫ টি কোটা করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে কতৃপক্ষ। ফলিত বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি অনুষদভুক্ত ছয়টি বিভাগে ৫ টি করে মোট ৩০ টি আসন বৃদ্ধি করা হয়েছে।
এছাড়া বিশ্ববিদ্যালয়ের নতুন আটটি বিভাগকে ভর্তি পরীক্ষার সময় বিভিন্ন ইউনিটে যোগ করা হয়েছে। মানবিক ও সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদভূক্ত সোস্যাল ওয়েলফেয়ার এবং ডেভেলপমেন্ট স্টাডিজ বিভাগকে ‘সি’ ইউনিটের অন্তর্ভূক্ত করা হয়েছে। ব্যবসায় প্রশাসন অনুুষদভুক্ত হিউমেন রিসোর্স ম্যানেজমেন্ট এবং ট্যুরিজম অ্যান্ড হসপিটালিটি ম্যানেজমেন্ট বিভাগকে ‘জি’ ইউনিটের অন্তর্ভূক্ত করেছে প্রশাসন।

 

‘ডি’ ইউনিটের অন্তর্ভূক্ত হয়েছে ফলিত বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি অনুষদভূক্ত ফার্মেসী বিভাগ এবং এনভায়রমেন্টাল সায়েন্স অ্যান্ড জিওগ্রাফি বিভাগ। একই অনুষদভুক্ত বায়োমেডিকেল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগকে রাখা হয়েছে ‘ই’ ইউনিটে। এছাড়া আইন ও শরীয়াহ অনুষদভূক্ত আইন ও ভূমি ব্যবস্থাপনা বিভাগকে ‘এইচ’ ইউনিটের অধীনে রাখা হয়েছে।

এদিকে ফলিত বিজ্ঞান অনুষদভুক্ত ইলেক্ট্রিক অ্যান্ড ইলেক্ট্রিকাল ইঞ্জিনিয়ারিং, কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং, ইনফরমেশন অ্যান্ড কমিউনিকেশন ইঞ্জিনিয়ারিয়ং, ফলিত রসায়ন ও কেমিকৌশল, বায়োটেকনোলজি অ্যান্ড জেনেটিক ইঞ্জিনিয়ারিং এবং ফলিত পুষ্টি ও খাদ্য প্রযুক্তি বিভাগের মোট আসনের সাথে ৫টি আসন করে মোট ৩০টি আসন বৃদ্ধি করা হয়।

আরো খবর »