নিরামিশ নয়, মাছ-মাংসই খান!

Feature Image

নিউজ ডেস্ক : সবাই বলেন, নিরামিশ খাওয়াটাই ভালো। শরীরের পক্ষ থেকেও আবার পরিবেশের হিসেব করলেও। আমিষ খেলে যে পরিবেশের ভারসাম্যটাই নষ্ট হয়ে যাবে। আজকের দিনে এমন কথাই বেশি শোনা যাচ্ছে।

যদিও এই কথাকে ভুলই প্রমাণ করলেন এনভায়র্নমেন্ট সিস্টেম অ্যান্ড ডিশিসনস জার্নালে এমন কথাই বলা হয়েছে। সেখানে বলা হয়েছে, আপনি যদি সত্যিই পরিবেশ এবং শরীর সচেতন মানুষ হন, তাহলে নিরামিশ  না খেয়ে একটা মাছ মাংস খান। সেটাই ভাল হবে। যে যে যুক্তি দেওয়া হয়েছে সেখানে, তারই কয়েকটা তুলে দেওয়া হল নিচে।

১. নিরামিশ যদি খেতেই থাকেন, তাহলে তো আসলে গাছ, পাতা, শাক, সবজি, মানে উদ্ভিদই খাচ্ছেন। এতেও তো পরিবেশের ক্ষতিই করছেন আপনি। মাংস খেলে পরিবেশের ভারসাম্য নষ্ট হবে। তাহলে উদ্ভিদ খেলেও তো পরিবেশের ভারসাম্য নষ্ট হবে। বিশেষ করে যখন গ্রীন হাউস গ্যাস নিয়ে এত আলোচনা হচ্ছে চারিদিকে।

২. নিরামিশ খেলে শরীরের ক্যালোরি বাড়ে। হ্যাঁ, এটা ঠিক কথা। কিন্তু মনে রাখতে হবে, শুধু ক্যালোরি দিয়েই শরীর চলবে না। একটু আধটু প্রোটিনও যে দরকার। আর ওই প্রোটিনটা কিন্তু আমাদের আমিষ খাবারই দেয়।

৩. মাছ খাবেন না। কেন? তাতে প্রাণী হত্যা হবে। পরিবেশের ভারসাম্য নষ্ট হবে। বুঝুন কান্ড! মাছ নিজেই তার বাচ্চা বা ডিম খেয়ে কূল পাচ্ছে না। খুবই স্বাভাববিক। সবাই মিলে মাছ খাওয়া ছেড়ে দিলেন, কয়েক মাস পর নদী-সমুদ্রে কি আর সত্যিই পানি থাকবে নাকি শুধু মাছ আর মাছ! ভাববেন।

৪. পরিষ্কার করে হিসেব করে দেখানো হয়েছে যে, যদি আপনি নিরামিশ খান, তাহলে আপনার শরীরে কিছু শক্তি, কিছু পানি এবং অন্যান্য পদার্থ আসে। কিন্তু, আপনি যদি আমিষ খান, তাহলেও এর থেকে বেশি পরিমানেই ওই জিনিসগুলো পেতে পারেন।

৫. আসলে শরীর এবং পরিবেশ, দুটোরই যদি আপনি ভালো চান, তাহলে আপনার আমিষ এবং নিরামিশ দুটোই খাওয়া উচিত।

সবশেষে বলে নেওয়া। এটা একান্তই আমেরিকার একটি গবেষণা সংস্থার মূল্যায়ন। তারাই যে ঠিক কথা বলছেন, এমনটা হয়তো নাও হতে পারে। কিন্তু এটা তাদের বক্তব্য।

আরো খবর »