কনের ১২, বরের ১৬!

Feature Image

কনের বয়স ১২। বাড়ি বান্দরবানের লামা উপজেলার সদর ইউনিয়নের বৈল্ল্যারচর এলাকায়। লামার পাশ্ববর্তী উপজেলা লোহাগাড়ার পুটিবিলা উচ্চ বিদ্যালয়ের ৬ষ্ট শ্রেণীর ছাত্রী। অপরদিকে বর আব্বাস মিয়া (১৬) একই ইউনিয়নের চিউনি পাড়া এলাকার আব্দুল মজিদ ও হামিদা বেগমের ছেলে। দুই পরিবারের সম্মতিতে বিবাহ ঠিক হয়।

শুক্রবার (৬ অক্টোবর) দুপুরে মেয়ের বাড়িতে সামাজিক ভাবে অনুষ্ঠান করে কনে তুলে দেয়ার সিদ্ধান্ত হয়। উক্ত বাল্য বিবাহ সম্পাদনের বিষয়টি জানতে পেরে লামা উপজেলা নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও সহকারী কমিশনার (ভূমি) সায়েদ ইকবাল লামা থানা পুলিশ নিয়ে শুক্রবার বেলা ১১টায় মেয়ের বাড়িতে গিয়ে উপস্থিত হয়। বিবাহের সকল প্রস্তুতি দেখে উভয় পরিবারের অভিভাবকদের ডেকে বিবাহ বন্ধ করেন।

স্থানীয় ইউপি মেম্বার আবুল কাসেম বলেন, আমরা উভয় পরিবারকে নিষেধ করেছিলাম। তারা কারো কথা না শুনে বাল্য বিবাহ দিতে সব প্রস্তুতি গ্রহণ করে। প্রশাসনের দ্রুত পদক্ষেপ নেয়ায় একটি মেয়ে বাল্য বিবাহের হাত থেকে রক্ষা পেল। লামা উপজেলা প্রশাসন ও লামা থানাকে ধন্যবাদ জানাই।

উপজেলা নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও সহকারী কমিশনার (ভূমি) সায়েদ ইকবাল সাংবাদিককে বলেন, উপজেলা নির্বাহী অফিসারের অনুমতিক্রমে আমরা যাই। বাল্য বিবাহটি স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের উপস্থিতিতে বন্ধ করা হয়। বর কনে পরিবারের অভিভাবকের কাছ থেকে আর বাল্য বিবাহ দেবে না এমন অঙ্গীকারনামা গ্রহণ করি। বাল্য বিবাহ সম্পাদনের মত অন্যায় করায় উভয় পরিবারকে মোবাইল কোট আইনে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

আরো খবর »