শ্বশুরবাড়ি বেড়েতে গিয়ে নিখোঁজ জামাই এর লাশ উদ্ধার

Feature Image

কুমাারখালী: শ্বশুর বাড়ি যাওরার পর নিখোঁজ জামাই রাকিবুল এর লাশ উদ্ধার করেছে কুমারখালী থানা পুলিশ। রাকিবুল হত্যায় সন্দেহে ৩ জনকে জিজ্ঞাসার জন্য থানায় আনা হয়েছে। সে নিখোঁজ নাকি তাকে অপহরণ করা হয়েছে এ নিয়েও এলাকায় চলছে নানা গুঞ্জন চলছিল গত ৩ দিন।

জানা যায়, কুষ্টিয়ার কুমারখালী উপজেলার চাপড়া ইউনিয়নের পাহাড়পুর স্কুলপাড়া গ্রামের মন্টু বিশ্বাসের ছেলে রাকিবুল (৩২) গত দুমাস আগে মালয়েশিয়া থেকে ছুটিতে বাড়িতে আসে। গত বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় সে পাশের গ্রাম কাঞ্চনপুর তার শ্বশুর বাড়িতে যায়। এর পর আর সে বাড়ি ফিরে আসেনি। রাকিবুলের ছোট ভাই রকিব জানান, গতকাল সন্ধ্যায় ভাই রাকিবুল তার মটরসাইকেল নিয়ে শ্বশুর বাড়ি যায়। কিছু সময় পরে বাদবাজার এসে ছোট ভাই রকিবকে মটরসাইকেল দিয়ে আবার শ্বশুর বাড়িতে চলে যায়। এর পর রাত ১০ টার দিকে রাকিবুল ফোন দিয়ে জানায় সে বাড়িতে আসবে। কিছু সময় পরই তার মোবাইল বন্ধ হয়ে যায়।

এতে দু:চিন্তায় পরে রাকিবের পরিবার। পরে রাকিবের খোঁজে শ্বশুর বাড়িতে ফোন দিলে সেখান থেকে জানানো হয় রাকিবুল বেশ কিছু সময় আগেই বাড়ির উদ্দেশ্যে রওনা দিয়েছে।

এর পর রাকিবের শ্বশুর বাড়ির লোকজন ও রাকিবের পরিবারের সদস্যারা স্থানীয় আত্নীয় স্বজনসহ সাম্ভব্য সব জায়গাতে খোজ করেও রাকিবের কোন সন্ধান পাইনি।

এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত রাকিবুলের লাশ উদ্ধার করে কু্ষ্টিয়া মর্গে প্রেরন করা হয়েছে। এ ব্যপারে কুমারখালী থানায় মামলার কাজ চলছে।

এ ব্যাপারে কুমারখালী থানায় কু্ষ্টিয়া পুলিশ সুপার ও রেব ১২ অফিসার বিশেষ সভা চলছে।
রাকিবুল হত্যার মুটিভ অনুসন্ধান হবে বলে পুলিশ সুপার মেহেদী হাসান আসাবাদ ব্যাক্ত করেন।

আরো খবর »