প্রকল্প না থাকায় নাচোল পৌর এলাকার উন্নয়নে গতি নেই

Feature Image

জেলা প্রতিনিধি, স্বাধীনবাংলা২৪.কম

চাঁপাইনবাবগঞ্জ থেকে জাকির হোসেন পিংকু: কোন প্রকল্প চালু না থাকায় নানা জনদূর্ভোগ থাকলেও  ঢিমেতালে উন্নয়ন কাজ চলছে চাঁপাইনবাবগঞ্জের নাচোল পৌর এলাকায়। আদিবাসী অধ্যূষিত বরেন্দ্রভূমির গহীণে অবস্থিত হয়েও দিনে দিনে গুরুত্বপূর্ন হয়ে ওঠা অবহেলিত এই দ্বিতীয় শ্রেণীর পৌরসভায় বর্তমানে চালু নেই কোন সংস্থার কোন উন্নয়ন প্রকল্প। জনদাবীর মুখে খুব সামান্য এডিবি’র (বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচী) অর্থে আর পৌরসভার নিজস্ব উদ্যোগে চলছে কিছু উন্নয়ন কাজ।

এ ব্যাপারে মেয়র আব্দুর রশিদ খান বলেন, সকল পৌরসভায় উন্নয়নের মুল চাবিকাঠি দেশী-বিদেশী অর্থে পরিচালিত বিভিন্ন প্রকল্প। নিজস্ব বা এডিপির অর্থে কোন পৌরসভার উন্নয়নে তেমন কিছু করা যায়না। কিন্তু প্রয়োচন থাকলেও নাচোলে বর্তমানে কোন উন্নয়ন প্রকল্প চালু নেই। চেষ্টা চলছে দেশী বা বিদেশী অর্থায়নে পরিচালিত কোন উন্নয়ন প্রকল্পে অর্ন্তভূক্ত হবার। গত মেয়রের আমলে তৃতীয় নগর অবকাঠামো পরিচালন ও উন্নয়ন (ইউজিপ) প্রকল্প চালু ছিল পৌরসভায়।

ওই প্রকল্পে পানি সরবরাহের কিছু কাজ হয়। কিন্তু দুর্নীতির অভিযোগে প্রায় তিন বছর পূর্বে প্রকল্পটি প্রত্যাহার করে নেয়া হয়। ফেরৎ যায় বরাদ্দ ৫ কোটি টাকা। মুখ থুবড়ে পড়ে পৌর নাগরিক সুবিধের উন্নয়নের আশা। পরে পানির কিছু কাজ করা হলেও মেয়র স্বীকার করেন, পৌর নাগরিকদের পানি নিয়ে দূর্ভোগের কথা। তিনি বলেন, পৌরসভার কর্মচারী বেতন,বিদ্যূৎ বিল সহ কোন বিলই বকেয়া নেই। এমন পৌরসভা দেশে বিরল। সম্প্রতি দেশের ৩২৮টি পৌরসভার মধ্যে ৩০টি পৌরসভা বিশ্বব্যাংকের অর্থায়নে জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের বাস্তবায়নে পানি সরবরাহ,ড্রেনেজ ও স্যানিটেশন উন্নয়নের একটি প্রকল্পের জন্য নির্বাচিত হয়েছে। নাচোল এর মধ্যে একটি। সামনে জানুয়ারীতে প্রকল্পের কাজ শুরু হবার কথা। বাসস্ট্যান্ড থেকে রেল ষ্টেশন পর্যন্ত গুরুত্বপূর্ন সড়কটি চলাচলের অযোগ্য হওয়ায় ব্যাপক জনদাবীর মুখে চলতি বছর এটি সংস্কার করা হয়েছে। এলজিইডি’র বাস্তবায়নে পূর্বের নগর উন্নয়ন প্রকল্পের অধীনে চারটি সড়ক উন্নয়ন কাজের প্রক্রিয়া চলছে। এগুলি শেষ হলে পৌর এলাকায় গুরুত্বপূর্ন কোন সড়ক সংস্কারবিহীন থাকবেনা বলে দাবী করেন মেয়র।

মেয়র বলেন, চলতি বছর সরকার থেকে এখন পর্যন্ত মাত্র ৬০ লক্ষ টাকা পাওয়া গেছে উন্নয়ন খাতে (এডিবি)। সোয়া কোটি টাকা নিজস্ব আয় (রাজস্ব) কর্মচারীদের বেতন,বিল,অনুদান ও অনান্য প্রয়োজনীয় খাতেই ব্যয় হয়ে যায়। ফলে সরকারী বরাদ্দ এডিপি’র সামান্য টাকায় চলে বছর ধরে উন্নয়নের কিছু কাজ। ফলে কাগজে কলমে ঘোষিত বাজেট প্রতিশ্রুতির সব কাজ কারা সম্ভভ হয়না। ( চলতি অর্থবছরে বাজেট প্রায় ৪ কোটি টাকা)। মেয়র বলেন, উপজেলা পরিষদ থেকে পৌর এলাকার উন্নয়নে বরাদ্দের কোন সূযোগ নেই।

জেলা পরিষদ মাঝে মাঝে কিছু সাহায্য করে। বিপনী,রোড ডিভাইডার,যাত্রী ছাউনির মত স্থাপনা করেছে তারা। নাগরিকদের নানান অভিযোগের মুখেও মেয়র আব্দুর রশিদ খান আশাবাদী চাঁপাইনবাবগঞ্জ,নওগাঁ ও রাজশাহী জেলার বিভিন্ন উপজেলার যোগােেগর কেন্দ্র হয়ে ওঠা নাচোল পৌরসভাকে উন্নয়নের রোল মডেল হিসেবে  গড়ে তুলতে।

স্বাধীনবাংলা২৪.কম/এমআর

 

আরো খবর »