ফয়সাল হাবিব সানি’র কবিতা `স্টেশন’

Feature Image

জানি, না চাইতেও একদিন মৃত্যুকে মুক্ত করে জন্মকে দিতে হবে পরিত্রাণ;
জন্ম মানেই তো হাঁটা, অতঃপর হেঁটে যাওয়া…
যে পঙ্গু জন্ম মানে তার কাছেও দৌঁড়- শেষাবধি দৌড়ে যাবার জন্মসূত্রিক বাধ্যাবাধকতা।
হাঁটতে হাঁটতে কখন যে এ দু’টি পা ফেলে এসেছি অাদিম জন্মে, ধূর্ত অমানিশায় ভরিয়েছি জন্মাবয়ব- চোখও বোঝেনি তা;
তবে জন্মে কান পেতে শুনেছি, পা বলেছে- `থামো’!

এতোক্ষণ অামি গাড়ির ভেতর ছিলাম- কিন্তু জন্মটানে এতোটায় বিভোর ছিলাম যে দেখতে দেখতে কখন যেন পৌঁছে গেছি অাকাশী ধ্রুপদীর অন্তিম স্টেশনে;
চোখ ফেরাতেই বড়ো হরফে লেখা স্টেশনের নাম দেখে বুঝলাম যেখানে নামতে চাইনি নেমে পড়েছি সেখানেই- জন্মের হাতে অবশ্যম্ভাবী মৃত্যুর হুইসেলে কি দারুণ নিদারুণ বেজে চলেছি এ জন্ম তখন ক্রমশ…

অার তাকিয়ে দেখলাম সবাই কেবল ছুটছে, ছুটছেই, ছুটছেই-ই…
অজ্ঞতাবশত তারা নাকি এ স্টেশনে চলে এসেছে; তারা অাবার তাদের জন্ম স্টেশনে ফিরে যেতে চায়- যেখান থেকে শুরু হয়েছিলো অাদি যাত্রা…
তবুও মানুষের গাড়িতে চড়বার এতো শখ!
স্টেশনে নামবার তীব্র অভিপ্রায়-

আরো খবর »