ট্রাম্পের কাছে পরাজয়ে যৌনবৈষম্যকে দায়ী করলেন হিলারি

Feature Image

স্বাধীনবাংলা২৪.কম

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: হিলারি ক্লিনটন দাবি করেছেন, ২০১৬ সালে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ডোনাল্ড ট্রাম্পের কাছে পরাজয়ের কারণ যৌনবৈষম্য।

তিনি অভিযোগ করেছেন, সমাজে নারীদের ‘দুই চরিত্র’। এর ফলে নারীদের অবমূল্যায়ন করা হয়।

‘হোয়াট হ্যাপেন্ড’ নামে স্মৃতিচারণমূলক তার নতুন বইয়ের প্রচারের উদ্দেশে রোববার ব্রিটেনের ‘চেলটেনহাম সাহিত্য উৎসব’-এ যোগ দেন হিলারি। ধরা হয়, ইংল্যান্ডের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলে ১৯৪৯ সাল থেকে শুরু হওয়া এই সাহিত্য উৎসব বিশ্বের সবচেয়ে প্রাচীন। বিখ্যাত কবিদের কাব্যগ্রন্থ, রান্নাবিষয়ক বই ও জনপ্রিয় ব্যক্তিদের আত্মজীবনী স্থান পায় এই উৎসবে।

হিলারি মনে করেন, পুরুষ সঙ্গীর তুলনায় নারীরা সমাজে দুই ধরনের চরিত্রে বিবেচিত হয়। এ অবস্থা থেকে বেরিয়ে এসে সমাজে পরিবর্তন আনতে তার সমর্থকদের সংগঠিত হওয়ার আহ্বান জানান তিনি।

বইয়ের ওপর আলোচনার সময় হিলারি বলেন, ‘রাজনীতি থেকে যৌনবৈষম্য দূর করার একমাত্র উপায় হলো আরো বেশি করে নারীদের রাজনীতিতে আসা।’

নির্বাচনে পরাজয়ের পর মানসিকভাবে ভেঙে পড়ার কথা অকপটে স্বীকার করেছেন হিলারি। তিনি বলেছেন, ট্রাম্পের কাছে এই পরাজয় তাকে হতভম্ব করেছে। এ অবস্থায় বিছানা ছেড়ে ওঠা তার জন্য কঠিন ছিল। তবে পরিস্থিতির পরিবর্তনে চেষ্টা করেছেন তিনি। বনে দীর্ঘসময় হাঁটা, রহস্য উপন্যাস পড়া, প্রিয় কুকুরগুলোর সঙ্গে খেলা করা ও যোগ ব্যায়াম তাকে যন্ত্রণাময় অবস্থা থেকে বেরিয়ে আসতে সাহায্য করেছে বলে জানিয়েছেন তিনি।

সাহিত্য উৎসবে কায়েক হাজার শ্রোতার উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘সবাই ভেঙে পড়ে। আপনি যদি ঘুরে দাঁড়ান ও চলতে থাকেন, তাহলে তাতে কিছুই যায় আসে না।’

উত্তর কোরিয়া নিয়ে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের অবস্থান ও প্যারিস জলবায়ু ‍চুক্তি থেকে যুক্তরাষ্ট্রের বেরিয়ে যাওয়া নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেন হিলারি। তিনি বলেছেন, ‘ব্যক্তি হিসেবে আমি ঠিক আছি কিন্তু আমেরিকান হিসেবে আমি উদ্বিগ্ন।’ তিনি আরো বলেছেন, ট্রাম্পের অভিষেক অনুষ্ঠানে যোগ দেওয়া না-দেওয়া নিয়ে দ্বিধায় ছিলেন কিন্তু তার স্বামী বিল ক্লিনটন তাকে সেখানে যেতে সমর্থন করেছিলেন। তথ্যসূত্র : রয়টার্স অনলাইন

স্বাধীনবাংলা২৪.কম/এমআর

আরো খবর »