রোহিঙ্গা ফেরাতে ভারতের ভূমিকা চায় বাংলাদেশ

Feature Image

স্বাধীনবাংলা২৪.কম

অার্ন্তজাতিক ডেস্ক: মিয়ানমার সরকারকে বুঝিয়ে দেশত্যাগী রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নেওয়ার ক্ষেত্রে ভারতের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা গ্রহণ করা উচিত বলে মনে করেন ভারতে নিযুক্ত বাংলাদেশের হাইকমিশনার সৈয়দ মুয়াজ্জেম আলী। তিনি বলেন, ভারত শুধু আঞ্চলিক শক্তিধর একটি দেশই নয়, মিয়ানমার ও বাংলাদেশের সঙ্গে তার সম্পর্কও মধুর। দুই দেশের সঙ্গেই ভারতের সীমান্ত রয়েছে। মিয়ানমারকে বুঝিয়ে এ সমস্যার সমাধানে ভারতই যোগ্য দেশ।

সোমবার সন্ধ্যায় রাজধানীর বিদেশি সাংবাদিকদের ক্লাবে হাইকমিশনারকে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছিল। সেখানে বিভিন্ন বিষয়ে তিনি মতবিনিময় করেন। রোহিঙ্গাদের জন্য ভারতের ত্রাণ পাঠানোর কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, রোহিঙ্গা সমস্যার সমাধানে আন্তর্জাতিক স্তরে ভারতের নিরন্তর সমর্থন বাংলাদেশ প্রত্যাশা করছে। আজ মঙ্গলবার বাংলাদেশ হাইকমিশন থেকে প্রচারিত এক বিবৃতিতে এ কথা জানানো হয়।

এই মুহূর্তে রোহিঙ্গা সমস্যাই বাংলাদেশের প্রধান মাথাব্যথার কারণ। হাইকমিশনার সৈয়দ মুয়াজ্জেম আলী তা জানিয়ে বলেন, পাঁচ লাখের বেশি রোহিঙ্গা ২৫ আগস্টের পর থেকে বাংলাদেশে চলে এসেছে। চার লাখ রোহিঙ্গা এর আগে থেকে বাংলাদেশে রয়ে গেছে। তারা কেউ ফেরত যায়নি। এই প্রায় ১০ লাখ মানুষের ভার বাংলাদেশকে বইতে হচ্ছে। সরকার তাদের থাকার অস্থায়ী ব্যবস্থা করেছে। কিন্তু প্রয়োজন স্থায়ী সমাধানের। তাদের দেশে ফেরানোই একমাত্র সমাধান।

সৈয়দ মুয়াজ্জেম আলী বলেন, মুশকিলটা হলো মিয়ানমার সরকার রোহিঙ্গাদের সে দেশের নাগরিক বলে গণ্য করতে প্রস্তুত নয়। অথচ কয়েক শ বছর ধরে তারা ওই দেশের বাসিন্দা। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জাতিসংঘের বৈঠকে পাঁচ দফা সমাধান সূত্রের উল্লেখ করেছেন। নিরন্তর কূটনৈতিক প্রচেষ্টা ও আন্তর্জাতিক চাপ এ সমস্যার স্থায়ী সমাধানে সহায়ক হতে পারে বলে তাঁর বিশ্বাস। হাইকমিশনার বলেন, এ লক্ষ্যে আন্তর্জাতিক মঞ্চে ভারতের নিরন্তর সমর্থন তাঁরা প্রত্যাশা করেন।

স্বাধীনবাংলা২৪.কম/এমআর

আরো খবর »