লালনের মানবতার কথা বঙ্গবন্ধু পালন করতেন – স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

Feature Image

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল বলেছেন, মানবতার কথা, অসাম্প্রদায়ীকতার কথা বলে গেছেন ফকির লালন। গানের মাধ্যমে যে মানবতার কথা বলে গেছেন তা পালন করতেন বঙ্গবন্ধুও।

মঙ্গলবার কুমারখালী ছেউড়িয়ায় বাউল সম্রাট ফকির লালন শাহ্য়ের ১২৭তম তিরোধান দিবসের দ্বিতীয় দিনের আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে একথা বলেন।

তিনি বলেন, বাউল সম্রাট ফকির লালন শাহ্ জাতহীন মানব দর্শন ও মানবতার ভাবধারাকে প্রতিষ্ঠিত করতে একটি অসাম্প্রদায়ীক সাম্যের সমাজ চেয়ে ছিলেন তিনি।

লালন মানুষকে শিখিয়ে ছিলেন কোন ধর্মের মধ্যে আবদ্ধ থেকে সম্প্রীতি বজায় রাখা যায় না। আর তাই বাংলাদেশের বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সেই মানবতা ভাবধারাকে প্রতিষ্ঠিত করে চলেছে।

তিনি বলেন, রোহিঙ্গারা বিভিন্ন জাতের মানুষ। তবুও তারা মানুষ বলেই তাদের পাশে দাঁড়াচ্ছে সরকার।
মানবতা কাকে বলে প্রধানমন্ত্রী জানে বলে উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশের ১৬কোটি মানুষের খাবার দিতে পারলে ১০লাখ রোহিঙ্গাদের খাবার কেন দিতে পারবে না, আর দিতে হচ্ছে এটাই মানবতা।

লালনের বাণী এতই মধুর যে, লালনগীতি না শুনে আমার রাতে ঘুম হয় না বলেও যোগ করেন তিনি।

অনুষ্ঠানের শুরুতে আগত অতিথিদের কুষ্টিয়া লালন একাডেমীর পক্ষ থেকে ফুলের তোড়া, ক্রেষ্ট ও আত্মসুদ্ধির প্রতীক একতারা উপহার দিয়ে বরণ করে নেওয়া হয়।

কুষ্টিয়ার জেলা প্রশাসক মো. জহির রায়হানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন কুষ্টিয়া৪ আসনের সংসদ সদস্য আব্দুর রউফ, দৌলতপুর-১ আসনের সংসদ সদস্য রেজাউল হক চৌধুরী, খুলনা রেঞ্জ ডিআইজি দিদার আহম্মদ, কুষ্টিয়ার পুলিশ সুপার এস এম মেহেদী হাসান, জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আলহাজ্ব সদর উদ্দিন খান, সাধারন সম্পাদক আজগর আলী প্রমুখ।

লালনের জীবন ও কর্ম নিয়ে আলোচনা করেন ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের অধ্যাপক ড. আবুল আহসান চৌধুরী।

মায়ানমার থেকে রোহিঙ্গাদের সাথে সন্ত্রাসীরা প্রবেশ করছে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল বলেন, সন্ত্রাসীদের ব্যাপারে আমাদের নীতি হলো জিরো টলারেন্স। কোন সন্ত্রাসীকে এলাকায় থাকতে দেব না। কোন বিচ্ছিন্নতাবাদী সুবিধা করতে পারবে না। মায়ানমারে অবস্থানরত সন্ত্রাসী বা দুস্কৃতিকারীদের নিয়ে আমাদের কোন মাথা ব্যাথা নেই। আমারা চাই তারা রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নেবেন।

মায়ানমার সফর প্রসঙ্গে মন্ত্রী বলেন, আগামী ২৩ তারিখে আমার মায়ানমারে যাবার সম্ভব্য তারিখ হলেও মায়ানমার সরকার এখনও নিশ্চিত করেননি।
মায়ানমার সরকারকে রোহিঙ্গাদের ফেরত নেওয়ার অনুরোধ জানাবো।

আরো খবর »