অনৈতিক কাজের অভিযোগে গাছে বেঁধে নির্যাতন

Feature Image

জেলা প্রতিনিধি, স্বাধীনবাংলা২৪.কম

চুয়াডাঙ্গা: আলমডাঙ্গায় অনৈতিক কাজের অভিযোগ তুলে হাসান ও বিউটি নামে দুজনকে গাছে বেঁধে নির্যাতন করা হয়েছে।

বুধবার রাতে উপজেলার গোয়ালবাড়ী গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। এ নিয়ে বৃহস্পতিবার গ্রামে সালিশ বসার কথা রয়েছে।

স্থানীয়রা জানান, গ্রামের দেলোয়ার হোসেনের ছেলে হাসানুজ্জামান হাসান বুধবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে একই গ্রামের সেন্টু রহমানের বাড়িতে যান। এ সময় অনৈতিক কাজের অভিযোগ তুলে কতিপয় যুবক হাসান ও সেন্টুর স্ত্রী বিউটিকে একটি ঘরে আটকে রাখে।

পরে বাড়ির সামনের একটি গাছে তাদের এক দড়িতে বাঁধা হয়। চলে মারপিট। প্রায় দুই ঘণ্টা নির্যাতনের পর রাত সাড়ে ১০টার দিকে সালিশে বিচারের শর্তে তাদের দড়ির বাঁধন মুক্ত করা হয়। তবে সেন্টুর স্ত্রী বিউটিকে তুলে দেয়া হয় হাসানের বাড়িতে। এ নিয়ে গ্রামে উত্তেজনা চলছে।

এ ব্যাপারে নির্যাতনের শিকার হাসান বলেন, ‘সেন্টু দিনমজুর। আমি কামলা খুঁজতে তার বাড়িতে গিয়েছিলাম। এ সময় গ্রামের একটি কুচক্রী মহল ষড়যন্ত্রমূলকভাবে আমাদের ঘরে আটকে রাখে। পরে গাছে বেঁধে নির্মম নির্যাতন চালায়।’

তিনি অভিযোগ করেন, গ্রামের ছাদেক আলীর ছেলে ওসমান, জামিল হোসেনের ছেলে কালাম, আসাদুলের ছেলে পলাশ, জালাল উদ্দিনের ছেলে মনোয়ারসহ বেশ কয়েকজন তাদের গাছে বেঁধে নির্যাতন করেন।

এ বিষয়ে চুয়াডাঙ্গার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) তরিকুল ইসলাম বলেন, ‘এ ব্যাপারে এখনও কোনো অভিযোগ পাইনি। পুলিশ পাঠিয়ে খোঁজখবর নিয়ে দোষীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

স্বাধীনবাংলা২৪.কম/এমআর

আরো খবর »