হ্যাকিংয়ের ঝুঁকিতে শিশুদের স্মার্টওয়াচ

Feature Image

বর্তমান যুগ প্রযুক্তি নির্ভর। আমাদের দৈনন্দিন জীবনের সবকিছুতেই আজ প্রযুক্তির ছোঁয়া।
তবে এর কিছু ক্ষতিকর দিকও রয়েছে। প্রযুক্তি বিদ্যার উন্নয়নের পাশাপাশি বৃদ্ধি পেয়েছে হ্যাকিং। আর এর হাত রক্ষা পায়নি শিশুদের স্মার্টওয়াচও।

সম্প্রতি নরওয়ের ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, শিশুদের জন্য বাজারে যেসব ‘স্মার্টওয়াচ’ ছাড়া হয়েছে সেগুলো হ্যাকিংয়ের ঝুঁকিতে রয়েছে।

এ ব্যাপারে নরওয়েজিয়ান কনজুমার কাউন্সিল বলেছে, তারা শিশুদের জন্য তৈরি এসব স্মার্টওয়াচ পরীক্ষা করে এগুলোর নিরাপত্তা ব্যবস্থায় বেশ কিছু ত্রুটি খুঁজে পেয়েছেন। তাদের মতে, কেউ চাইলে এসব স্মার্টওয়াচ ট্র্যাক করতে পারবে, এগুলোতে আড়ি পাততে পারবে এমনকি যে শিশু এই ঘড়ি পরে আছে তার সঙ্গে যোগাযোগও করতে পারবে।

নরওয়ের কনজুমার কাউন্সিল আরও বলছে, নিরাপত্তা ব্যবস্থায় ত্রটির কারণে অপরিচিত কেউ চাইলে কোনো শিশুর গতিবিধির ওপর নজর রাখতে পারবে বা একজন শিশুর অবস্থান সম্পর্কে একেবারে ভুল তথ্য দিতে পারবে।

তবে যেসব কোম্পানির তৈরি করা স্মার্টওয়াচ সম্পর্কে এই হুঁশিয়ারি দেওয়া হয়েছে সেসব কোম্পানির পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, যে সমস্যা ছিল তা সমাধানে ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।

উল্লেখ্য, বিবিসির এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বাজারে এখন শিশুদের জন্য যেসব স্মার্টওয়াচ পাওয়া যায়, এগুলো মূলত স্মার্টফোনের মতই কাজ করে।
ফলে বাবা-মা চাইলে তাদের শিশুদের সঙ্গে যোগাযোগ রক্ষা করতে পারেন, তারা কখন-কোথায় আছেন তা জানতে পারেন। কোনো কোনো স্মার্টওয়াচে একটি ‘এস-ও-এস’ বা বিপদ সংকেত বাটন আছে, বিপদে পড়লে যা চেপে সঙ্গে সঙ্গে শিশুরা বাবা মাকে সতর্ক করে দিতে পারে।

আরো খবর »