কাতালান সংসদ ভেঙে দিলেন স্পেনের প্রধানমন্ত্রী

Feature Image

স্বাধীনবাংলা২৪.কম

আর্ন্তজাতিক ডেস্ক: স্পেনের কাছ থেকে আলাদা হয়ে স্বাধীনতার ঘোষণার পর কাতালান সংসদ ভেঙে দিয়েছেন স্পেনের প্রধানমন্ত্রী মারিয়ানো রাহয়। এছাড়া কাতালোনিয়ায় আঞ্চলিক নির্বাচনের আহ্বান করেছেন তিনি।

প্রধানমন্ত্রী রাহয় জানান, কাতালোনিয়ায় স্বাভাবিক অবস্থা ফিরিয়ে নিয়ে আসার জন্য সেখানে সরাসরি শাসন জারি করা দরকার। এছাড়া কাতালান নেতা কার্লোস পুইজমন্ট এবং তার মন্ত্রীদের ওপরও চটেছেন তিনি।

কাতালোনিয়ার নেতারা স্বাধীনতার প্রশ্নে ভোটের আয়োজনের পর থেকেই সঙ্কটের শুরু। তাদের সেই ভোটকে অবৈধ ঘোষণা করেছে স্পেনের সুপ্রিম কোর্ট।

স্পেনের অ্যাটর্নি জেনারেল প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন, যারা স্বাধীনতার পক্ষে ভোট দিয়েছেন তাদের বিচারের আওতায় নিয়ে আসা হবে।

কাতালান সরকারের দাবি, স্বাধীনতার প্রশ্নে ৯০ শতাংশ ভোটার সমর্থন জানিয়েছে। অন্যরা কোর্টের নির্দেশে ভোট বর্জন করেছে।

শুক্রবার কাতালোনিয়ার আঞ্চলিক পার্লামেন্টে ভোটের পর স্পেন থেকে আলাদা হয়ে স্বাধীন রাষ্ট্র গঠনের ঘোষণা দেয়া হয়। স্পেনের প্রধানমন্ত্রী মারিয়ানো রাহয় কাতালোনিয়ায় সরাসরি শাসন জারির কথা বলার কিছুক্ষণের মধ্যেই কাতালোনিয়ার পার্লামেন্ট স্বাধীনতা ঘোষণার পক্ষে রায় দেয়।

আল জাজিরার এক খবরে বলা হয়, স্পেন থেকে আলাদা হয়ে স্বাধীনতার প্রশ্নে পার্লামেন্টের ৭০ জন পক্ষে ভোট দেন এবং বিপক্ষে ভোট পড়ে ১০ জনের। খালি ব্যালট জমা পড়েছে দুইটি।

কাতালোনিয়ার স্বায়ত্তশাসন স্থগিত করার জন্য রাহয় সরকারের হাতে সাংবিধানিক ক্ষমতা প্রদান করেছে স্পেনের সিনেট। মন্ত্রিসভার বৈঠক শেষে রাহয় এ ঘোষণা দেন।

রাহয় জানান, আমরা এমন কিছু হোক, সেটা কখনোই চাইনি। অবাধ, সুষ্ঠু ও আইনি নির্বাচন অনুষ্ঠানে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ থাকার কথাও জানান তিনি।

কাতালান পুলিশ প্রধানকে বরখাস্ত করারও ঘোষণা দেন তিনি। আগামী ২১ ডিসেম্বর এই নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। তবে কাতালোনিয়ার পার্লামেন্টে ভোটের পর স্বাধীনতার ঘোষণা শুনে হাজার হাজার মানুষ রাস্তায় নেমে এসে উল্লাস করতে থাকে। সূত্র : বিবিসি

স্বাধীনবাংলা২৪.কম/এমআর

আরো খবর »