খাগড়াছড়িতে সড়কের পাশের অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদে অভিযান

Feature Image

জেলা প্রতিনিধি, স্বাধীনবাংলা২৪.কম
খাগড়াছড়ি থেকে মোঃ আবদুর রউফ;
খাগড়াছড়ি শহরকে যানজট নিরসন, প্রধান সড়ক সম্প্রসারণ, অবৈধ স্থাপনা অপসারন ও ফুটপাত দিয়ে জনসধারণের চলাচল নিশ্চিত করার লক্ষ্যে খাগড়াছড়ি জেলা শহরে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ অভিযান শুরু করা হয়েছে। শনিবার সকাল ১০টার সময় খাগড়াছড়ি কেন্দ্রীয় জামে মসজিদের দক্ষিন পাশ হতে নারিকেল বাগান, মহাজন পাড়া, খেজুর বাগান কলেজ গেইট পর্যন্ত উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনা করা হয়।

খাগড়াছড়ি পৌরসভার মেয়র মোঃ রফিকুল আলমের নেতৃত্বে এ সময় সড়কের পাশে দোকানপাটসহ বিভিন্ন ধরণের অবৈধ স্থাপনা ধ্বংসে রেকি করা হয়েছে। উদ্ধার করা এসব জায়গা সড়ক সম্প্রসারণ, নালা ও ফুটপাত নির্মাণে ব্যবহার করা হবে। অভিযানে উপস্থিত ছিলেন, খাগড়াছড়ি সড়ক ও জনপদ বিভাগের সাব এসিস্ট্যান্ট ইঞ্জিনিয়ার মোঃ মাসুদ, সাব এসিস্ট্যান্ট ইঞ্জিনিয়ার রেনল চাকমা, পৌরসভার এসিস্ট্যান্ট ইঞ্জিনিয়ার জামাল হোসেন, সাব এসিস্ট্যান্ট ইঞ্জিনিয়ার এস এম নাজিম প্রমুখ।

সূত্র জানায়, এমন বিষয় সম্প্রতি কয়েক দফায় সড়ক বিভাগ থেকে জেলা আইন-শৃঙ্খলা ও উন্নয়ন সভার আলোচনায় তুলে ধরা হয়েছে।
আলোচনায় জেলা প্রশাসন, পুলিশ প্রশাসন, রাজনৈতিক ও সাংবাদিক নেতৃবৃন্দসহ সভায় উপস্থিতিরা শহরের যানজট নিরসনে উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনায় সহযোগিতার আশ্বাসের মাধ্যমে অভিযানের সিদ্ধান্ত হয়। সড়ক ও জনপথ এবং পৌর সূত্রে জানা যায়, সড়কের দুই পার্শ্বে ফুটপাতে অবৈধ দোকানপাট গড়ে ওঠেছে। এ ছাড়া বিভিন্ন সংগঠনের ছোট ছোট কার্যালয়, পরিবহণ কাউন্টার ও সাইনবোর্ড ছিল। এতে একদিকে যানজট, সাধারণ মানুষের চলাচলে বিঘ্ন ঘটছে, অপর দিকে শহরের সৌন্দর্য নষ্ট হচ্ছে।

খাগড়াছড়ি পৌরসভার মেয়র মোঃ রফিকুল আলম জানান, পৌর এলাকায় সড়ক বিভাগ বা সরকারি যে সমস্ত জায়গা বেদখল হয়েছে তা পুনরুদ্ধারের জন্য একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। পৌর এলাকা পর্যায়ে আমাকে এ কমিটির আহবায়ক করে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। এজন্য আমরা সড়ক বিভাগ বা সরকারি যে সমস্ত জায়গা বেদখল হয়েছে তা পুনরুদ্ধারের জন্য সড়ক বিভাগের প্রতিনিধিদের সাথে নিয়ে উচ্ছেদ অভিযান শুরু করেছি। যানজট মুক্ত একটি শহর গড়ার লক্ষ্যে বেদখল জায়গা উচ্ছেদ করার জন্য পাবলিক পর্যায়ে সীমানা নির্ধারণ করে দেওয়া হয়েছে। আশা করি ৪-৫ দিনের মধ্যে এগুলো দখলমুক্ত হবে।

আরো খবর »