ধর্ষণের শিকার শতবর্ষী নারীর মৃত্যু

Feature Image

স্বাধীনবাংলা২৪.কম

অার্ন্তজাতিক ডেস্ক: এক অঘটন পুরো উত্তর প্রদেশের মানুষকে হতভম্ব করে দিয়েছে। রোববার মধ্যরাতে মেরুতের পার্শ্ববর্তী গ্রামের শয্যাশায়ী এক শতবর্ষী নারীকে ধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে। ধর্ষণের পর সোমবার সকালে মারা গেছেন তিনি।

অভিযুক্ত অঙ্কিত পুনিয়াকে (৩৫) ইতোমধ্যেই গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গ্রেফতারের পর তার বিরুদ্ধে শারীরিক নির্যাতন, ধর্ষণ ও হত্যার অভিযোগ গঠন করা হয়েছে।

নিহতের গ্রামবাসী অভিযুক্তের সর্বোচ্চ শাস্তির দাবি জানিয়েছে। গ্রেফতারের পর স্থানীয় আদালতেও নিয়ে যাওয়া হয়েছিল তাকে। বর্তমানে হাজতে আছেন তিনি।

নিহতের পরিবার বলছে, সোমবার সকালে মারা গেছেন শতবর্ষী ওই নারী। শারীরিকভাবে দুর্বল হয়ে পড়ার কারণে কাউকে ডাকতে না পেরে কেবল কোনোকিছুতে আঘাত করে অন্যদের ডাকার চেষ্টা করেন। তার পরেই পরিবারের লোকজন বিষয়টি জানতে পারে।

নিহতের ৪০ বছর বয়সী নাতি জানান, উনি খুবই দুর্বল ছিলেন। নীরবে কেঁদেই যাচ্ছিলেন তিনি। তিনি যেখানে শুয়েছিলেন, আমরা সেখানে দৌড়ে গেলাম। তার পরেই দেখতে পাই তাকে একজন জোরাজুরি করছেন।

বয়সের কারণে এমনিতেই অসুস্থ ছিলেন তিনি। তার ওপর হেনস্থার ফলে তিনি আরও অসুস্থ হয়ে পড়েন। শারীরিক পরীক্ষার পর চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

জানি পুলিশ স্টেশনের কর্মকর্তা পিসি শর্মা জানান, খবর পেয়ে আমরা দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌঁছে অ্যাম্বুলেন্স পাঠানোর কথা বলি। পরে অ্যাম্বুলেন্সে করে ওই নারীকে জেলা হাসপাতালে নিয়ে যাই।

তিনি আরও জানান, ভারতীয় দণ্ডবিধির ৪৫৮, ৩৭৬ ও ৩০২ নম্বর ধারা অনুযায়ী পুনিয়ার বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করা হয়েছে।

হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক জানান, একেবারে গুরুতর অবস্থায় রোগীকে হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়েছিল। তাকে ধর্ষণ করা হয়েছিল কি না তা নিশ্চিতভাবে জানার জন্য ফরেনসিক রিপোর্টের জন্য নমুনা পাঠানো হয়েছে বলেও জানান তিনি। সূত্র : টাইমস অব ইন্ডিয়া

স্বাধীনবাংলা২৪.কম/এমআর

আরো খবর »