শেষ হলো ছয়দিনব্যাপী পিকেএসএফ’র উন্নয়ন মেলা

Feature Image

কু্ষ্টিয়া থেকে হুমায়ুন কবির: শেষ হলো ছয়দিনব্যাপী পল্লী কর্ম-সহায়ক ফাউন্ডেশন (পিকেএসএফ)’র উন্নয়ন মেলা-২০১৭। বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রের হল অব ফেমে আয়োজিত এ মেলার শেষ দিনে অংশগ্রহণকারী উদ্যোক্তাদের পুরস্কার প্রদান ও সঙ্গীতানুষ্ঠানের মাধ্যমে শুক্রবার এ মেলার সমাপ্তি ঘটে।

সমাপনী অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন পিকেএসএফ`র সভাপতি ড. কাজী খলীকুজ্জমান আহমদ। স্বাগত বক্তব্য দেন পিকেএসএফ`র ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. আবদুল করিম। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশে নিযুক্ত ভিয়েতনামের রাষ্ট্রদূত ট্রান ভ্যান কোহ।

সমাপনী অনুষ্ঠানে পিকেএসএফ`র সহযোগী সংস্থার মধ্য থেকে ৩টি এবং অন্যান্য সরকারি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের মধ্য হতে ৩টি প্রতিষ্ঠানকে সেরা স্টল-এর পুরস্কার প্রদান করা হয়।

এরমধ্যে কুষ্টিয়ার স্বেচ্ছাসেবী ও আর্থসামাজিক উন্নয়ণ সংস্থা ‌‌‌’দিশা’র নির্বাহী পরিচালক মো: রবিউল ইসলামের হাতে পুরস্কার তুলে দেন অতিথিবৃন্দ।

সমাপনী অনুষ্ঠানে পিকেএসএফ`র সভাপতি ড. কাজী খলীকুজ্জমান আহমদ বলেন, বিগত সাতাশ বছরের অগ্রমুখী পথপরিক্রমায় পল্লী কর্ম-সহায়ক ফাউন্ডেশন (পিকেএসএফ) দরিদ্র জনগোষ্ঠীর টেকসই উন্নয়নে গতিশীল ও কার্যকর ভূমিকা পালন করে চলেছে। মানব মর্যাদা প্রতিষ্ঠার প্রত্যয়ে পিকেএসএফ’র সমন্বিত উদ্যোগে দেশব্যাপী হাজারো ক্ষুদ্র উদ্যোক্তা এখন আত্মনির্ভরতার প্রতীক। তাঁদের বহুমুখী প্রচেষ্টার বিচিত্র প্রদর্শনী, সমাজের বর্তমান পরিপ্রেক্ষিতে উন্নয়ন ভাবনা নিয়ে আলোচনা সভা এবং প্রতি সন্ধ্যায় দেশের নানা অঞ্চল থেকে আগত ও ঢাকার প্রথিতযশা শিল্পীদের অংশগ্রহণে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানসহ পিকেএসএফ গত ২৯ অক্টোবর থেকে ৩ নভেম্বর ২০১৭ পর্যন্ত বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে এই বর্ণাঢ্য উন্নয়ন মেলার আয়োজন করা হয়।

অনুষ্ঠানে জেল হত্যা দিবস উপলক্ষে দাঁড়িয়ে এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয়।

মেলার আয়োজকদের পক্ষ থেকে জানানো হয়, ১৯৯০ সালে সরকার কর্তৃক প্রতিষ্ঠিত পিকেএসএফ বর্তমানে সমগ্র দেশে ২৭৭টি সহযোগী উন্নয়ন প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে দারিদ্র্য বিমোচন ও টেকসই উন্নয়নের জন্য কাজ করে যাচ্ছে। উন্নয়ন মেলায় ৯০টি সহযোগী সংস্থার অংশগ্রহণে ১৩৩টি স্টলে সহযোগী সংস্থার পিকেএসএফ-এর অর্থায়নের আওতাভুক্ত দরিদ্র জনগোষ্ঠীর উৎপাদিত বিভিন্ন পণ্যসামগ্রী এবং সেবা প্রদর্শিত হয়।

আরো খবর »