শুধু পেঁয়াজ নয়, সবজির দাম এখনও চড়া

Feature Image

স্বাধীনবাংলা২৪.কম

ঢাকা: সবজি ও পেঁয়াজের বাজার দরের অস্থিরতা গত এক মাস ধরেই দেখে আসছেন ক্রেতারা। আবহাওয়ায় শীতের আমেজ পড়লেও কাঁচাবাজারে সবজির দরে লাগেনি শীতের হাওয়া। তবে চলতি মাসে প্রথম সপ্তাহ থেকে পেঁয়াজের দাম না কমলেও মাসের ২য় সপ্তাহ থেকে কিছুটা কমতে শুরু করেছে দাম।

পাইকারি বাজারে পেঁয়াজ ও সবজির দর কিছুটা কমলেও খুচরা বাজারে এখনও তার প্রতিফলন নেই বলে অভিযোগ ক্রেতাদের।

শুক্রবার রাজধানীর কাঁচাবাজার ঘুরে এসব তথ্য জানা যায়।

সর্বশেষ সবজির খুচরা বাজারের তথ্য অনুযায়ী, প্রতিকেজি ধনিয়াপাতা ২০০ টাকা থেকে ১৫০ টাকা, বেগুন ৭০ টাকা থেকে ৬০ টাকা, পটল ৬০ টাকা থেকে ৫০ টাকা,  কাঁচামরিচ ২০০ টাকা থেকে ১৬০ টাকা, পেঁপে ২৫ টাকা থেকে ২০ টাকা, সিম ১৪০ টাকা থেকে ১০০ টাকা, বরবটি ১০০ টাকা থেকে ৮০ টাকা, টমেটো ১৪০ টাকা থেকে ১২০ টাকা, গাজর ৭০ টাকা থেকে ৬০ টাকা, প্রতি পিস বাঁধাকপি ৩৫ টাকা থেকে ৩০ টাকা, প্রতিপিস ফুলকপি ৩৫ টাকা থেকে ৩০ টাকা ও আলু ২৫ টাকা থেকে ২০ টাকা করে বিক্রি হচ্ছে।

বিক্রেতারা বলছেন,পাইকারি বাজারে শীতের সবজির আমদানির কারণে দাম কিছুটা কমেছে। তবে খুচরা বাজারে দাম এখনও স্বাভাবিক হয়নি। কিন্তু আশা করা যায় চলতি মাসের তৃতীয় সপ্তাহে সবজির দাম কমা শুরু হতে পারে।

সর্বশেষ খুচরা বাজার দর অনুযায়ী, প্রতিকেজি দেশি পেঁয়াজ ৮০ টাকা থেকে ৭০ টাকায় ও ভারতীয় আমদানি করা পেঁয়াজ ৬০ টাকা থেকে ৫০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। এছাড়া দেশি রসুন ৮০ টাকা, আমদানি রসুন ৮৫ টাকা,  চিনি ৫৫ টাকা, দেশি মসুর ডাল ১০০ থেকে ১২০ টাকা, আমদানি করা মসুর ডাল ৬০ টাকা করে কেজি বিক্রি হচ্ছে।

এদিকে বাজারে চালের দামে লাগা আগুন এখনও নেভেনি। হঠাৎ করে বেড়ে যাওয়া বাজারে দর আটকে আছে এক জায়গাতে। প্রতি কেজি নাজিরশাইল চাল বিক্রি হচ্ছে ৭০ টাকা করে। এছাড়া প্রতিকেজি মিনিকেট ৬০ টাকা,  বিআর-২৮ কেজিপ্রতি ৫০-৫৫ টাকা ও স্বর্ণা ও পারিজা কেজি প্রতি বিক্রি হচ্ছে ৪৬ টাকা। অপরিবর্তিত রয়েছে সব নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য ও মাছ মাংসের  দাম।

স্বাধীনবাংলা২৪.কম/এমআর

আরো খবর »