”বুদ্ধির ঢেকী” নাটক মঞ্চায়নের পর নাট্যোত্তর আলোচনা

Feature Image

কুমারখালী শিল্পকলা একাডেমির আয়োজনে ”বুদ্ধির ঢেকী” নাটক মঞ্চায়নের পর নাট্যোত্তর আলোচনা, সাংষ্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়ে গেলো।

শুক্রবার সন্ধ্যার পর কুমারখালী উপজেলা শিল্পকলা একাডেমির আয়োজনে সম্প্রতি কুমারখালী পাবলিক লাইব্রেরী হলে মঞ্চস্থ রবীণ্দ্রনাথ ঠাকুরের ” জুতা আবিষ্কার” কবিতা অবলম্বনে নাটক ” বুদ্ধির ঢেঁকি”র মঞ্চায়নের পর নাট্যোত্তর আলোচনা ও সাংষ্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়েছে। শিল্পকলার ঘরোয়া নাট্যরিহার্সাল রুমে হেমন্তী সন্ধ্যায় নাটকের কলাকুশলি, নেপথ্যের শিল্পী, কর্মী ও শিল্পকলার কর্মকর্তা-সদস্য, শিল্পী ও অভিভাবকদের নিয়ে নাটক পরবর্তী ভাল-মন্দ, উত্তরণ-সংকট ও সর্বোপরি অভিনয় শিল্পীদের অভিনয় প্রসঙ্গে শুরুতে আলোচনা করেন নাট্যকার লিটন আব্বাস। শিল্পকলা একাডেমির হাল-হকিকত ও ভবিষ্যত কর্মপন্থা ও অভিনয় শিল্পীদের আগ্রহ ও উৎসাহ উদ্দীপনা নিয়ে আলোচনা করেন শিল্পকলা একাডেমির সহসভাপতি আক্তারুজ্জামান নিপুন।

সবশেষে শিল্পকলার একাডেমির সাধারণ সম্পাদক ও নাট্য নির্দেশক, অভিনেতা কামরুজ্জামান আইয়ুব সংশ্লিষ্ট সকলকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন এবং এবারের প্রথম শিল্পকলায় স্থানীয় মেয়েরা অভিনয় করে থিয়েটার আন্দোলনকে বেগবান করায় কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। ৩জন নারী অভিনেতাকে উপহার সামগ্রী তুলে দেন কামরুজ্জামান আইয়ুব, আক্তারুজ্জামান নিপুন, লিটন আব্বাস ও জুলফিকার আলী হিরো। এ উপহারে তাদের অভিনয়ের প্রতি উৎসাহ আরো বেড়ে যাবে উপস্থিত সকলের ধারনা। নাটকের সব পাত্র-পাত্রী, নেপথ্যের কারিগরদের নিয়ে ফটোসেসশনও চলে একপর্ব। এরপর গান গেয়ে মাতান শিল্পকলা একাডেমির শিক্ষক শিল্পী জহিরুল ইসলাম, ছাত্রছাত্রীবৃন্দ। বাদ্যযন্ত্র বাজান পলাশ, লিটন প্রমুখ।

 

অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন শিল্পকলা একাডেমির সদস্য আলামিন, পার্থ প্রমুখ। পরে নৈশ্যভোজের মধ্য দিয়ে নাট্যোত্তর আনন্দ সন্ধ্যার সমাপ্তী ঘটে। নাটক বিবেকের কথা বলে আর মঞ্চ নাটক নাট্য আন্দোলনের অন্যতম অনুষঙ্গও বটে। থিয়েটার ভিত্তিক এ আন্দোলন সংষ্কৃতি বিকাশ তথা দেশপ্রেমের প্রতিও অনুসংযোগ ঘটাবে বলে বিশ্বাস করা যায়।

আরো খবর »