পাল্টা জবাব দিলেন অপু

Feature Image

স্বাধীনবাংলা২৪.কম

বিনোদন প্রতিবেদক: নিকেতনের তালাবদ্ধ বাসায় গৃহপরিচারিকার কাছে ছেলে আব্রাম খানকে রেখে দেশের বাইরে চিকিৎসা নিতে গেছেন অপু বিশ্বাস। গত পরশু থেকে অনলাইনে এ রকম সংবাদ ছড়িয়েছে।

অপু জানান, ১৬ নভেম্বর রাতে বাথরুমে পা পিছলে পড়ে আহত হয়েছিলেন তিনি। এরপর প্রথমে ঢাকার একটি বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে গেলে চিকিৎসকেরা তাঁকে কলকাতায় যাওয়ার পরামর্শ দেন।

শাকিবের অভিযোগ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘ছেলেকে কাজের মেয়ের কাছে রেখে আসিনি। শেলির কাছে রেখে এসেছিলাম, সে আমার বোন। তা ছাড়া বাসায় আমার মাসিও ছিলেন। তাহলে কাজের মেয়ে কোথা থেকে এল? এসব কথা শুনে আমি নিজেই অবাক হয়ে যাচ্ছি!’

অপু আরও বলেন, ‘হঠাৎ বিপদে পড়ে আমাকে কলকাতায় আসতে হয়েছে। ওই সময় আব্রামকে সঙ্গে আনতে সমস্যা ছিল। ও বেশ অসুস্থ। তবে প্রতি মুহূর্তেই ফেসবুকে ভিডিও কলে আব্রামকে দেখছি, খোঁজখবর নিচ্ছি।’ বাসার ভেতরে ছেলেকে তালাবদ্ধ অবস্থায় রাখার বিষয়টি স্বীকার করলেও দরজার বাইরে তালা লাগানোর বিষয়টি সত্য নয় বলে দাবি করেন এই অভিনেত্রী। তিনি বলেন, ‘আমি নিজেই শেলি আপাকে ভেতর থেকে তালাবদ্ধ করে রাখার কথা বলে এসেছি। কারণ আমার সন্তানের নিরাপত্তার একটা বিষয় আছে।’

সন্তানকে দাদা-দাদির কাছে রেখে যেতে পারতেন কি না—এমন প্রশ্নে কিছুক্ষণের জন্য চুপ হয়ে যান অপু বিশ্বাস। এরপর খানিকটা আবেগজড়িত কণ্ঠে বলেন, ‘কিছুদিন আগে আমার বাবুর (আব্রাম) প্রথম জন্মদিন গেল। অনুষ্ঠানে দাদা-দাদি, ফুফু কেউই আসেননি। তাঁরা আমার বাসায়ও কখনো আব্রামকে দেখতে আসেন না। তাহলে আমি কীভাবে তাঁদের কাছে রেখে আসি? শাকিব যে ব্যাংকক থেকে ফিরেছে, সেটাও আমাকে জানানো হয়নি। তাঁদের পরিবারের কেউই আমার সঙ্গে যোগাযোগ রাখেন না। যদি জানতাম শাকিব ঢাকায়, তাহলে আব্রামকে তার বাবার কাছেই রেখে আসতাম।’

আফসোস করে অপু বিশ্বাস বলেন, ‘আহত হয়ে কলকাতায় আসার খবর সবাই জানে। সে (শাকিব) একবারও আমার খবর নেয়নি। যখন সন্তানকে সে দেখতে গেছে, সেটা আব্রামের ঘুমের সময়। তারপরও সেখানে গিয়ে যদি আমার সঙ্গে যোগাযোগ করত, তাহলে আমিই বাসায় ঢোকার ব্যবস্থা করতাম।’

উল্লেখ্য, গত শুক্রবার রাতে ছেলেকে দেখতে নিকেতনের বাসায় যান শাকিব খান। বাসায় তালা দেখে ফেরত আসেন তিনি। ফিরে অপুর বিরুদ্ধে অভিযোগ করে বিভিন্ন গণমাধ্যমে তিনি বলেছেন, ‘এক বছরের শিশুকে কাজের মেয়ের কাছে রেখে ঘরে তালা দিয়ে কীভাবে যায় একজন মা? আমার ছেলের কিছু হলে এর দায়ভার কে নেবে?’

স্বাধীনবাংলা২৪.কম/এমআর

আরো খবর »