আজ তেরশ্রী গনহত্যা দিবস

Feature Image

মানিকগঞ্জ থেকে জালাল উদ্দিন ভিকুঃ  আজ ২২ নভেম্বর। মানিকগঞ্জের ঘিওরের তেরশ্রী গণহত্যা দিবস। ১৯৭১ সালের এই দিনে পাক হানাদার বাহিনী তেরশ্রী এস্ট্রেটের তৎকালীন জমিদার সিদ্ধেশ্বর প্রসাদ রায় চৌধুরী, তেরশ্রী কলেজ অধ্যক্ষ আতিয়ার রহমানসহ ৪৩জন স্বাধীনতাকামী মানুষকে আগুনে পুড়িয়ে, বেয়নেট দিয়ে খুচিয়ে খুচিয়ে ও গুলি করে হত্যা করা হয়। জালিয়ে পুড়িয়ে দেয়া হয় পুরো গ্রামের ঘরবাড়ী। সেই ভয়াল দিনের কথা মনে পড়লে আজো আতকে উঠেন অনেকেই। তবে স্বাধীনতার এতো বছরেও শহীদ পরিবার গুলো রাষ্ট্রীয় ভাবে কোন স্বীকৃতি পায়নি। এ নিয়ে শহীদ পরিবার গুলোর মধ্যে ক্ষোভ রয়েছে। অনেক পরিবার মানবেতর জীবন যাপন করলেও তাদের দেখার কেউ নেই।

এলাকাবাসী জানায়,১৯৭১ সালের ২২ নভেম্বর কনকনে শীতের কাকডাকা ভোরে এদেশীয় দোসর রাজাকার, আলবদর, আল-শামস বাহিনীর সহায়তায় পাক হানাদার বাহিনী ঘুমন্ত গ্রামবাসীর উপর নারকীয় হতাযজ্ঞ শুরু করে। প্রথমে তেরশ্রী কলেজের অধ্যক্ষ আতিয়ার রহমানকে কলেজ ক্যাম্পাসে গুলি করে ও বেয়নেট দিয়ে খুচিয়ে হত্যা করে। এর পর তেরশ্রী এস্টেটের জমিদার সিদ্ধেশ্বর প্রসাদ রায় চৌধুরীর শরীরে পেট্রোল ঢেলে পুড়িয়ে মারে। একই কায়দায় গ্রামের ৪৩জনকে হত্যা করা হয়। আগুন দিয়ে জ্বালিয়ে দেয়া হয় বাড়ি ঘর। হানাদাররা চলে যাওয়ার পর আশপাশের গ্রামের লোকজন এসে মৃত দেহগুলো

 

নিয়ে স্থানীয় শ্মশানে ও কবরস্থানে মাটি চাপা দেয়। এতো আত্মহুতির পরও শহীদ পরিবার গুলো অবহেলিত। কোন সরকারই এদের প্রতি কোন দৃষ্টি দেয়নি। রাস্ট্রীয়ভাবে কোন স্বীকৃতিও দেয়া হয়নি। ২২ নভেম্বর এলেই কদর বেড়ে যায় শহীদ পরিবার গুলোর। বিভিন্ন মিডিয়া হাজির হন তেরশ্রী গ্রামে। এদের দুঃখ দুর্দশার কথা মিডিয়ায় ফলাও করে প্রচার হলেও সরকারের দৃষ্টি পড়েনা। এভাবেই ২২ নভেম্বর আসে ২২ নভেম্বর চলে যায়।

আরো খবর »