ধর্মঘটে যাচ্ছেন সরকারি হাসপাতালের নার্সরা

Feature Image

স্বাধীনবাংলা২৪.কম

ঢাকা: শীর্ষ নার্স নেতাদের নামে রাজধানীর শাহবাগ থানায় মামলা দায়েরের প্রতিবাদে ধর্মঘট করতে যাচ্ছেন সরকারি হাসপাতালের নার্সরা। পাবলিক সার্ভিস কমিশনের (পিএসসি) অধীনে সিনিয়র স্টাফ নার্স নিয়োগ পরীক্ষায় প্রশ্নপত্র ফাঁসের সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে শীর্ষ নার্স নেতাদের নামে মামলা দায়েরের প্রতিবাদে ধর্মঘটে যাওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছেন তারা।

প্রাথমিক পর্যায়ে আজ বুধবার স্বাধীনতা নার্সেস পরিষদ (স্বানাপ) একাংশের শীর্ষ নেতারা (মামলার এজাহারভুক্ত আসামি) বৈঠক ডেকেছেন। নির্ভরযোগ্য একাধিক সূত্রে এ সব তথ্য জানা গেছে।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে একাধিক নার্স নেতা জানান, প্রশ্নপত্র ফাঁসের সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে গোয়েন্দা পুলিশের হাতে গ্রেফতারকৃত দুই আসামি সাইফুল ও আরিফুলের জবানবন্দির নামে শীর্ষ নার্স নেতাদের বিরুদ্ধে হয়রানিমূলক মামলা দায়ের করা হয়েছে।

মামলা দায়েরের পর থেকে এজাহারভুক্ত আসামিদের অনেকেই নিজেদের নির্দোষ দাবি করে বলেছেন, প্রশ্নপত্র ফাঁসকারী চক্রের হোতাদের বাঁচাতে নার্স নেতাদের নাম জড়ানো হয়েছে।

তারা বলেন, পিএসসি প্রশ্নপত্র প্রণয়ন করেছে। তাদের সম্পৃক্ততা ছাড়া প্রশ্ন ফাঁস হতে পারে না। মামলায় গ্রেফতারকৃত দু’জনসহ মোট ৯ জনকে আসামি করা হলেও পিএসসির কাউকেই এখন পর্যন্ত আসামি করা হয়নি। অথচ সারা দেশের নার্সরা মামলায় আসামি হওয়ার ভয়ে সঠিকভাবে দায়িত্ব পালন করতে পারছেন না।

স্বানাপের একাংশের একজন শীর্ষ নেতা বলেন, প্রকৃতপক্ষে নার্স নেতাদের কেউ প্রশ্নপত্র ফাঁসের সঙ্গে জড়িত ও অবৈধ অর্থ লেনদেনের সঙ্গে জড়িত থাকলে তাদের শাস্তির আওতায় আনায় তাদের কারও আপত্তি নেই। কিন্তু মিথ্যা মামলায় অহেতুক হয়রানি করা হলে তারা রাজধানীসহ সারা দেশের চিকিৎসাসেবা প্রতিষ্ঠানে ধর্মঘট ডাকতে বাধ্য হবেন।

ঢামেকের একজন নার্স জানান, আজ তারা হাসপাতাল পরিচালকের সঙ্গে দেখা করে হয়রানিমূলক মামলা দায়েরের বিষয়টি অবহিত করে করণীয় সম্পর্কে পরামর্শ চাইবেন।

উল্লেখ্য, প্রশ্নপত্র ফাঁসের সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে ঢামেক হাসপাতালে কর্মরত দুই নার্স সাইফুল ও আরিফুলকে সম্প্রতি গোয়েন্দা পুলিশ গ্রেফতার করে। বর্তমানে তারা রিমান্ডে রয়েছেন। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তারা অভিযোগ স্বীকার করেছেন এবং কয়েকজন নার্স নেতাও প্রশ্ন ফাঁসের সঙ্গে জড়িত রয়েছে বলে জানান। তাদের জবানবন্দির ওপর ভিত্তি করে শাহবাগ থানায় মামলা দায়ের করা হয়।

স্বাধীনবাংলা২৪.কম/এমআর

আরো খবর »