তাজরীনে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় দায়ী ব্যক্তিদের শাস্তি দাবি

Feature Image

স্বাধীনবাংলা২৪.কম

ঢাকা: ঢাকার অদূরে আশুলিয়ার নিশ্চিন্তপুরে তাজরীন ফ্যাশনসে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় পাঁচ বছর পূর্ণ হওয়া উপলক্ষে বিভিন্ন গার্মেন্ট শ্রমিক সংগঠনের পক্ষ থেকে নিহত ব্যক্তিদের স্মরণ ও দায়ী ব্যক্তিদের বিচারের দাবিতে মিছিল বের করা হয়।

শুক্রবার সকাল থেকে বিভিন্ন সংগঠন তাজরীন গার্মেন্টসের সামনে ফুল দিয়ে নিহত ব্যক্তিদের স্মরণ করে। বেশ কয়েকটি সংগঠনের পক্ষ থেকে মিছিল বের করা হয়। মিছিল শেষে বক্তব্য দেন বাংলাদেশ গার্মেন্টস অ্যান্ড শিল্প শ্রমিক ফেডারেশনের সভাপতি শফিকুল ইসলাম, বাংলাদেশ জাতীয় গার্মেন্টস শ্রমিক-কর্মচারী লীগের সভাপতি সিরাজুল ইসলাম, বাংলাদেশ ট্রেড ইউনিয়ন কেন্দ্রের সভাপতি জিয়াউল করিম, সাংগঠনিক সম্পাদক কে এম মিন্টু প্রমুখ।

বক্তারা অগ্নিকান্ডের জন্য দায়ী ব্যক্তিদের শাস্তি নিশ্চিতকরণ, আহত ব্যক্তিদের পুনর্বাসন ও চিকিৎসা এবং হতাহত ব্যক্তিদের ছেলেমেয়েদের শিক্ষার ব্যবস্থা করার দাবি জানান। এ ধরনের দর্ঘটনা যাতে আর না ঘটে, সে বিষয়ে ব্যবস্থা গ্রহণ ও শ্রমিকদের নিরাপদ কর্ম পরিবেশের দাবি তোলেন।

ঢাকার অদূরে আশুলিয়ার নিশ্চিন্তপুরে তাজরীন ফ্যাশনসে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনার পাঁচ বছর পূর্ণ হচ্ছে আজ শুক্রবার। সেই ঘটনায় ১১১ জন পোশাকশ্রমিক আগুনে পুড়ে মারা যান। শতাধিক শ্রমিক আহত হন। তাঁদের অনেকেই এখন পর্যন্ত স্বাভাবিক জীবনে ফিরতে পারেননি। অবশ্য এত বিপুলসংখ্যক শ্রমিকের মৃত্যু ও আহত হওয়ার ঘটনায় এখন পর্যন্ত কাউকেই শাস্তির মুখোমুখি হতে হয়নি। তোবা গ্রুপের তাজরীন ফ্যাশনসে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে শ্রমিক মৃত্যুর ঘটনায় করা হত্যা মামলায় গত এক বছরে দুজন সাক্ষী হাজির করতে পেরেছে রাষ্ট্রপক্ষ। এ মামলায় সাক্ষী ১০৪ জন। মামলাটি ঢাকার প্রথম অতিরিক্ত জজ ও দায়রা জজ আদালতে বিচারাধীন আছে।

২০১২ সালের ২৪ নভেম্বর রাতে তাজরীন ফ্যাশনসে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। পরের বছরের ডিসেম্বরে সিআইডি তাজরীনের মামলার অভিযোগপত্র দেয়। আসামিরা হলেন তাজরীনের এমডি মোহাম্মদ দেলোয়ার হোসেন, তাঁর স্ত্রী ও প্রতিষ্ঠানটির চেয়ারম্যান মাহমুদা আক্তার, প্রকৌশলী এম মাহবুবুল মোর্শেদ, প্রশাসনিক কর্মকর্তা দুলাল, স্টোর ইনচার্জ হামিদুল ইসলামসহ ১৩ জন। তাঁদের মধ্যে চারজন পলাতক। অন্যরা জামিনে রয়েছেন।

স্বাধীনবাংলা২৪.কম/এমআর

আরো খবর »