কোহলিদের চুক্তির অর্থ বেড়ে দ্বিগুণ?

Feature Image

ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড বিসিসিআইয়ের সঙ্গে চুক্তির অর্থ বৃদ্ধির দাবি নিয়ে সিওএ’র দ্বারস্থ হতে যাচ্ছেন বিরাট কোহলি, মহেন্দ্র সিং ধোনিরা। ভারতীয় ক্রিকেটারদের কেন্দ্রীয় চুক্তির অর্থ দ্বিগুণ করা হতে পারে। এখন ‘এ’ গ্রেডের ক্রিকেটাররা পান ১ কোটি রুপি। সেটা বেড়ে ২ কোটি রুপি হতে পারে। তবে সিওএ’র অনুমোদন বোর্ডের জেনারেল বডিতে পাস না হলে ক্রিকেটারদের চুক্তির অর্থ বাড়ানোর সিদ্ধান্তে সরকারি শিলমোহর পড়বে না। উল্লেখ্য, সবেক কোচ অনিল কুম্বলে ‘এ’ গ্রেডের ক্রিকেটারদের চুক্তির অর্থ বাড়িয়ে ৫ কোটি করার প্রস্তাব দিয়েছিলেন। সেই রিপোর্ট সিওএ জমা দিয়েছিল সুপ্রিম কোর্টে।

গত সেপ্টেম্বর মাসে বোর্ড বিপুল পরিমাণের আইপিএল সম্প্রচার স্বত্ত্ব চুক্তি স্বাক্ষরিত করার পর ক্রিকেটাররা এখন আরও বেশি টাকা দাবি করছেন। গত ৩০ সেপ্টেম্বর ক্রিকেটারদের চুক্তির মেয়াদ শেষ হয়েছে। বর্তমানে তা নিয়ে বোর্ডের সঙ্গে রফাও চালাচ্ছেন ক্রিকেটাররা। চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি খেলতে যাওয়ার আগে বিরাট কোহলি আলাদা করে কথা বলেছিলেন বোর্ডের কোষাধ্যক্ষ অনিরুদ্ধ চৌধুরির সঙ্গে।

বোর্ডের এক শীর্ষ কর্তা জানিয়েছেন, দেশের হয়ে এক ফরম্যাটে খেলা এবং রনজি খেলা ক্রিকেটারদের নিয়ে কোহলির উদ্বেগ যুক্তিসঙ্গত। কারণ, যে তরুণ ক্রিকেটার শুধুমাত্র আইপিএলে খেলেন, তাদের আয় এখন অনেকটাই বৃদ্ধি পেয়েছে। বিশেষ করে, যারা শুধুমাত্র একটি ফরম্যাটে খেলেন, তাদের রোজগার অনেক কম। অধিনায়কের দাবি গৃহীত হলে উপকৃত হবেন চেতেশ্বর পূজারা, মহেন্দ্র সিং ধোনির মতো ক্রিকেটাররা।
এর জন্য অর্থ তহবিল গড়ার একটি পরিকল্পনার রূপরেখাও তৈরি করা হয়েছে। ওই কর্তা জানান, টেস্ট ক্রিকেটারদের জন্য একটি পৃথক তহবিল গড়া হবে। আইপিএল নিলাম থেকে সেখানে অর্থ আসবে। বোর্ডের ওই কর্তার যুক্তি হলো, জাতীয় দলে না খেলা দেশি কিংবা বিদেশি ক্রিকেটারদের ক্ষেত্রে প্রাপ্ত টাকার একটি উর্দ্ধসীমা থাকবে। ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলো ওই সংশ্লিষ্ট ক্রিকেটারের জন্য যত খুশি দর হেঁকে তাকে কিনতেই পারেন। কিন্তু পুরো টাকা ওই ক্রিকেটার পাবেন না। তিনি ওই উর্দ্ধসীমা পর্যন্তই টাকা পাবেন। বাকি অর্থ যাবে টেস্ট ক্রিকেটারদের জন্য গড়া তহবিলে।

শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে একদিনের সিরিজে বিশ্রাম দেয়া হয়েছে বিরাট কোহলিকে। শোনা যাচ্ছে, টি-২০ সিরিজেও খেলার ব্যাপারে কোহলি এখনো নাকি মনস্থির করে উঠতে পারেননি। চলতি সপ্তাহের শেষে তিনি নাকি ভারতীয় টিম ম্যানেজমেন্ট এবং নির্বাচকদের সঙ্গে কথা বলে সিদ্ধান্ত নেবেন বলে শোনা যাচ্ছে। বোর্ডের এক কর্তা জানিয়েছেন, ‘বিরাট নির্বাচকদের কাছ থেকে কিছুটা সময় চেয়ে নিয়েছে। সেই কারণেই শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে টি-২০ সিরিজের দল এখনো ঘোষণা করা হয়নি। বিরাট ১২ ডিসেম্বর পর্যন্ত ব্যক্তিগত কাজে ব্যস্ত থাকবে। তার পরে ও পুরোপুরি বিশ্রাম নেবে না টি-২০ সিরিজে খেলবে, সেটা জানা যাবে।’
দক্ষিণ আফ্রিকা সফরের জন্য ভারতীয় দল নির্বাচন এখনও হয়নি। ভারত-শ্রীলঙ্কা তৃতীয় টেস্টের পর কিংবা মাঝেই নির্বাচকরা বৈঠকে বসতে পারেন। তবে বোর্ড সূত্রে জানা গেছে, কোহলি নাকি চাইছেন টেস্ট দলের কিছু ক্রিকেটারকে আগেই দক্ষিণ আফ্রিকায় পাঠাতে। যাতে পরিবেশ ও পরিস্থিতির সঙ্গে মানিয়ে নিতে সুবিধা হয়।

এই মুহূর্তে অশ্বিন বিশ্বের সেরা স্পিনার
রবিচন্দ্রন অশ্বিন এই মুহূর্তে বিশ্বের সেরা স্পিনার। এমনটাই মত শ্রীলঙ্কার কিংবদন্তি স্পিনার মুত্তাইয়া মুরলীধরনের। শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে দ্বিতীয় টেস্টে দ্রুততম ৩০০টি উইকেট নিয়ে বিশ্বরেকর্ড গড়েছেন অশ্বিন। তাঁর লেগেছে ৫৪টি ম্যাচ। ভারতীয় অফ স্পিনারটি ভেঙে দিয়েছেন ৩৬ বছর আগে ডেনিস লিলির গড়া রেকর্ড। লিলির লেগেছিল ৫৬টি ম্যাচ। ৫৮টি ম্যাচে ৩০০টি টেস্ট উইকেট নিয়েছিলেন মুরলীধরন।
ভারতের তারকা স্পিনার অশ্বিনকে শুভেচ্ছা জানিয়ে মুরলী বলেছেন, ‘টেস্ট ক্রিকেটে ৩০০টি উইকেট নেওয়া সহজ ব্যাপার নয়। অনেক বড় সাফল্য। এই মুহূর্তে ও বিশ্বের সেরা স্পিনার। একদিনের দলে ও নেই। আমার বিশ্বাস অল্প সময়ের মধ্যে ও সীমিত ওভারের ক্রিকেটেও ফিরে আসবে।’
উল্লেখ্য, মুরলীধরন ১৩৩টি টেস্টে ৮০০টি উইকেট নিয়েছিলেন। গতকাল অশ্বিন বলেছিলেন, তার লক্ষ্য এখন ৬০০ উইকেট। এই প্রসঙ্গে মুরলী জানিয়েছেন, ‘ওর বয়স ৩১ কিংবা ৩২ হবে। আমার মতে আরও বছর পাঁচেক ও চুটিয়ে খেলবে। তবে এটাও দেখতে হবে ও কেমন পারফর্ম করে এবং কতটা নিজেকে চোটমুক্ত রাখতে পারে। ৩৫ বছরের পর খেলা চালিয়ে যাওয়া সত্যিই কঠিন।’

আরো খবর »