পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া ঘাটে দেড় হাজার ট্রাক আটকা

Feature Image


মানিকগঞ্জ থেকে জালাল উদ্দিন ভিকুঃ  গত দু’দিনের ঘন কুয়াশা ও ফেরি স্বল্পতার দরুন স্পর্শকাতর পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া নৌরুটে যানবাহন পারাপার ব্যাহত হওয়ায় উভয় ঘাটে প্রায় ১০ কিলোমিটার দীর্ঘ যানজট সৃস্টি হয়। এ দু’ঘাটে অন্তত দেড় হাজার ট্রাকসহ দূঢ়পাল্লার বাস-কোচ, মাইক্রো-প্রাইভেট ও অন্যান্য যানবাহন পারের অপেক্ষায় রয়েছে। দু’দিনে ঘন কুয়শায় প্রায় ৯ ঘন্টা ফেরি-লঞ্চ চলাচল বন্ধ থাকায় যাত্রী ও সংশ্লিষ্টরা চরম দুর্ভোগ পোহায়।

জানা গেছে, পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া নৌরুটে বিআডবিøউটিসি’র বহরে ছোট-বড় ১৭টি ফেরির মধ্যে ১৪টি চালু রয়েছে। দীর্ঘদিনের পুরাতন হওয়ায় তিনটি ফেরি যান্ত্রিকক্রুটির দরুন স্থানীয় ভাসমান কারখানা ‘মধুমতিতে’ মেরামতে রয়েছে। প্রতি সপ্তাহে বুধ, বৃহস্পতি ও শুক্রবার এ দু’ঘাটে যানবাহন চাপ বৃদ্ধি পায়। এর মধ্যে ফেরি স্বল্পতা ও ঘন কুয়াশায় ট্রিপ কমে যাওয়ায় ঘাটে পারের অপেক্ষায় থাকা যানবাহন সংখ্যা ক্রমেই বৃদ্ধি পায়। বাস-কোচ, মাইক্রো-প্রাইভেটকারসহ ছোট গাড়ী অগ্রাধিকার ভিত্তিতে পার হলেও পন্যবাহী ট্রাক-লড়ি ফেরিতে লোড করতে কম গুরুত্ব দেয়া হয় বলে ভূক্তভোগীরা অভিযোগ তোলেন। ঘাটে ফেরি পার হতে আসা ট্রাক ফেরি পার হতে দু থেকে তিন দিন পর্যন্ত অপেক্ষায় থাকতে হচ্ছে।

অপরদিকে, ঘাটে যানজট এড়াতে বিশেষ করে উথলী মোড় ও পার্শ্ববর্তী এলাকায় কয়েকশ’ ট্রাক রাস্তার পাশে রাখা হয়। দূঢ়পাল্লার বাস-কোচ ও অন্যান্য গাড়ী ঘন্টার পর ঘন্টা অপেক্ষা শেষে ফেরি পার হয়।
সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা জানান, গভীর রাতে সৃষ্ট কুয়াশায় ক্রমেই ঘনীভূত হলে শেষ রাতে ফেরি চলাচল বন্ধ রেখে সকালে কুয়াশার মাত্রা কমলে চলাচল স্বাভাবিক হয়। যানবাহন বোঝাই চারটি ফেরি মাঝ নদীতে আটকে থাকে। একই কারনে ঢাকা-আরিচা মহাসড়কে যানবাহন চলাচল বিঘœ ঘটে।

 

বিভিন্ন সংযোগ সড়কে বহু যাত্রী দুর্ভোগ পোহায়। সকাল ৮/৯টা পর্যন্ত হেড লাইট জালিয়ে গাড়ী চলতে দেখা যায়।
এছাড়া, মহাসড়ক ও সংযোগ রাস্তার পাশে গজিয়ে উঠা বিভিন্ন ইট ভাটায় ব্যবহৃত ট্রাক থেকে ঝরে পড়া মাটি কুয়াশায় ভিঁজে পিচ্ছিল হওয়ায় যানবাহন দুর্ঘটনার আশংকা বেড়েছে।

আরো খবর »