পাহাড় বাঁচাতে রোহিঙ্গা নিয়ন্ত্রণে সচেষ্ট সরকার

Feature Image

স্বাধীনবাংলা২৪.কম

ঢাকা: পার্বত্য তিন জেলার পাহাড়ে রোহিঙ্গারা যেন প্রবেশ করতে না পারে সেজন্য সরকার সচেষ্ট রয়েছে বলে জানিয়েছেন পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব কামাল উদ্দিন তালুকদার।

বুধবার পার্বত্য মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে সাংবাদিকদের তিনি এ কথা বলেন। পার্বত্য অঞ্চলের ঝুঁকি, জলবায়ু, ক্ষুধা, অভিবাসন প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে জাতিসংঘ ঘোষিত আন্তর্জাতিক পার্বত্য দিবস-২০১৭ উপলক্ষে এ সংবাদ ব্রিফিংয়ের আয়োজন করা হয়।

কয়েকটি পুলিশি চেকপোস্টে হামলার জের ধরে গত ২৫ আগস্ট থেকে মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে অভিযানের নামে রোহিঙ্গা নিধন শুরু করে মিয়ানমার সেনাবাহিনী। এছাড়া অভিযানে বহু রোহিঙ্গা নারীকে গণধর্ষণ ও ঘরবাড়ি আগুন নিয়ে পুড়িয়ে দেয়া হয়। নির্যাতন থেকে বাঁচতে সাড়ে ছয় লাখেরও বেশি রোহিঙ্গা বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছে। বাংলাদেশে প্রবেশ করা অনেক রোহিঙ্গা বিভিন্ন বন ও পাহাড়ে আশ্রয় নেয়। তাদের অনেককে আশ্রয় কেন্দ্রে নিয়ে আসে প্রশাসন।

সংবাদ ব্রিফিংয়ে কামাল উদ্দিন জানান, পার্বত্য তিন জেলার পাহাড়ে চাপ ঠেকাতে রোহিঙ্গারা যাতে প্রবেশ করতে না পারে সেজন্য আমরা মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে সচেষ্ট আছি।

তিনি বলেন, পার্বত্য তিন জেলা দেশের সবচেয়ে দরিদ্র এলাকা। এসব জেলার মানুষের জীবনমান উন্নয়নে সরকার কাজ করছে। আমরা প্রতিনিয়ত এ জেলাগুলোতে জলবায়ু, ক্ষুধা, অভিবাসন নিয়ে সমস্যা ফেস করছি।

অতিরিক্ত সচিব বলেন, চলতি বছর এই তিন জেলায় যে পরিমাণ বৃষ্টিপাত হয়েছে তা বিগত ৫০ বছরের ইতিহাস ভঙ্গ করেছে। এ এলাকার পাহাড়গুলো মাটির তৈরি। ফলে অতি বৃষ্টিতে প্রতিনিয়ত বড় ধরনের দুর্ঘটনা ঘটে।

রাস্তা ঘাটের নির্মাণ করতে না পারায় পার্বত্য অঞ্চলের মানুষের দারিদ্র নিরসনে শিল্প কারখানা স্থাপন সম্ভব হচ্ছে না বলে সংবাদ ব্রিফিংয়ে জানান তিনি।

কামাল উদ্দিন তালুকদার বলেন, রাজধানীতে আগামী ৭ ডিসেম্বর থেকে ১১ ডিসেম্বর পর্যন্ত পার্বত্য এলাকার মানুষের জীবন-সংস্কৃতি, পোশাক পরিচ্ছেদ ইতিহাস ঐতিহ্য বিষয়ক তথ্যাদি সমতলের মানুষের মাঝে পরিচয় করিয়ে দেওয়ার লক্ষ্যে শিল্পকলা একাডেমিতে পাঁচ দিনব্যাপী মেলার আয়োজন করা হয়েছে।

স্বাধীনবাংলা২৪.কম/এমআর

Loading...

আরো খবর »