ঈশ্বরদীতে বিবাহের ২৩ বছর পর পুত্র সন্তান লাভ

Feature Image

উপজেলা প্রতিনিধি, স্বাধীনবাংলা২৪.কম

ঈশ্বরদী (পাবনা) থেকে সেলিম আহমেদ: ঈশ্বরদী উপজেলার সাঁড়া ইউনিয়নের মাঝদিয়া গ্রামের আব্দুর শুকুর খানের পুত্র আশরাফ আলী খান দির্ঘ ২৪ বছর আগে কুষ্টিয়া জেলার ভেরামারা উপজেলার ষোলদাগের আবুল মালিথার কন্যা সিমা বেগমকে বিয়ে করেন। বিয়ের পর থেকে তাদের কোন সন্তান না হওয়ায় বিভিন্ন ডাক্তারের স্মরনাপর্ণ হন। নানা চেষ্টা তদবির করে প্রায় ২৩ বছর পর পুত্র সন্তান লাভ করেন।

আশরাফ আলী খান জানান ২৪ বছর আগে কুষ্টিয়া জেলার ভেরামারা উপজেলার ষোলদাগের সিমা বেগমকে বিয়ে করেন। বিয়ের এক বছর অতিবাহিত হওয়ার পর থেকে শুরু হয় সন্তানের জন্য অপেক্ষার পালা। বিভিন্ন ডাক্তারের চিকিৎসা নিয়েও কোন ফল হচ্ছিল না। এরপর আল্লাহতায়ালার কাছে প্রার্থনা করতে থাকি। অবশেষে মহান আল্লাহর অশেষ মেহেরবানিতে ঈশ্বরদী রেলওয়ে গেট সংলগ্ন রুপসী বাংলা ক্লিনিকে সফল সিজারের মাধ্যমে আমার স্ত্রী ফুটফুটে পুত্র সন্তানের জন্ম দিয়েছে। আমার বাবা-মা থেকে শুরু করে পরিবারের সকলেই খুশিতে বাগ বাগ। আমি আমার সন্তান লোকমান হোসেনের জন্য সবার কাছে দোয়া কামনা করছি।

এবিষয়ে ঈশ্বরদী উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাক্তার এফ এ আসমা খান জানান, সিমার হয়তো অল্প বয়সে বিয়ে হয়েছিল। তার শরীরে হরমনালইন ব্যালেন্স কম থাকার কারণে হয়তো বাচ্চা হতে দেরি হয়েছে। ডাক্তার দেখিয়ে ঔষধ সেবনের কারণে হরমনালইন ব্যালেন্স হওয়ায় বাচ্চা জন্ম দানে সক্ষম হয়েছে। ঈশ্বরদীতে দির্ঘ দিন পর বাচ্চা প্রসবের ঘটনা ইতোপূর্বেও আরও অনেক নারীর হয়েছে।

স্বাধীনবাংলা২৪.কম/এমআর

Loading...

আরো খবর »