মাশরাফি যেন ‘পরশ পাথর’

Feature Image

স্বাধীনবাংলা২৪.কম

ক্রীড়া প্রতিবেদক: মাশরাফি যেন পরশ পাথর।যেখানেই তার হাতের স্পর্শ পড়ে, সেখানেই সোনা ফলে। বিশেষ করে দেশের সবচেয়ে জমজমাট ক্রিকেট টুর্নামেন্ট বিপিএল মানেই এখন মাশরাফি বিন মর্তুজা। বিপিএল আর মাশরাফি এখন সমোচ্চারিত শব্দ। বিপিএলের ইতিহাসে একমাত্র অধিনায়ক মাশরাফি, যিনি পাঁচ আসরের চারটির ফাইনাল খেলছেন এবং শিরোপা জিতেছেন প্রথম তিনটিতে। আজ রংপুর রাইডার্সকে চ্যাম্পিয়ন করালেই লিখে ফেলবেন ইতিহাস। হ্যাটট্রিক শিরোপা জিতে এমনিতেই বিপিএলের ইতিহাসে নাম লিখিয়েছেন মাশরাফি। এখন অপেক্ষা শুধু সংখ্যাটাকে তিন থেকে চারে উন্নীত করা। আজ সেই ইতিহাস গড়ার হাতছানি। যদি ঢাকা ডায়নামাইটসকে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন হয় রংপুর রাইডার্স, তাহলেই মাশরাফি হবেন বাংলাদেশের ক্রিকেট ইতিহাসে একমাত্র বা অদ্বিতীয় ক্রিকেটার, যার নামের পাশে লেখা থাকবে বিপিএলের প্রথম পাঁচ আসরের চারটির চ্যাম্পিয়ন দলের অধিনায়ক। তার অধিনায়কত্বে বিপিএলের প্রথম আসরে চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল ঢাকা গ্ল্যাডিয়েটর্স এবং তৃতীয় আসরে চ্যাম্পিয়ন করান কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সকে। চার নম্বর আসরে শুধু ফাইনাল খেলতে ব্যর্থ হন।

এক আসর বিরতি দিয়ে এবার ফের ফাইনাল খেলছেন মাশরাফি। অমায়িক অথচ পর্বতের মতো দৃঢ় চরিত্রের মাশরাফি রংপুরের ফাইনাল খেলাকে দলের সতীর্থদের কৃতিত্ব দিয়েছেন পুরোটা, ‘টুর্নামেন্টের মাঝপথে কখনই মনে হয়নি আমরা ফাইনাল খেলব। কিন্তু এখন আমরা ফাইনাল খেলছি একটি দল হয়ে। সবচেয়ে বড় বিষয় হচ্ছে, আমাদের ড্রেসিং রুমে বাড়তি কোনো চাপ নেই। সবাই খুব এনজয় করে মুহূর্তগুলো। ’ রংপুর রাইডার্স সিলেট পর্বে বিপিএল শুরু করেছিল জয় দিয়ে। কিন্তু টুর্নামেন্টের মাঝপথে কক্ষচ্যুত হয়ে পড়ে। তখন মনে হয়েছিল সুপার ফোর খেলা কঠিন হবে। যদিও দলের টার্গেট ছিল সুপার ফোর খেলা। লিগ পর্বের শেষ দিকে দারুণ ক্রিকেট খেলে জায়গা নেয় সুপার ফোরে।

সুপার ফোরে টানা দুই ম্যাচে ক্রিস গেইল ও জনসন চার্লসের সেঞ্চুরিতে যথাক্রমে খুলনা টাইটানস ও কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সকে হারিয়ে প্রথমবারের মতো জায়গা করে নেয় ফাইনালে। রংপুরকে ফাইনালে টেনে নিয়ে যান দুরন্ত নেতৃত্ব দিয়ে মাশরাফি বিন মর্তুজা। দেশের সবচেয়ে সফল ক্রিকেটার এখন সবচেয়ে জনপ্রিয়ও। শুধু তার খেলা দেখতেই মাঠে হাজির হন হাজারো ক্রিকেটপ্রেমী। এমনটা আর কোনো ক্রিকেটারের ক্ষেত্রে দেখা যায় না।

স্বাধীনবাংলা২৪.কম/এমআর

আরো খবর »