ক্ষমতা রাষ্ট্রপতির হাতেই

Feature Image

স্বাধীনবাংলা২৪.কম

ঢাকা: বিচার বিভাগের কর্মী এবং বিচার বিভাগীয় ম্যাজিস্ট্রেটদের নিয়ন্ত্রণ, কর্মস্থল নির্ধারণ, পদোন্নতি, ছুটি মঞ্জুরিসহ অন্যান্য শৃংখলা বিধান রাষ্ট্রপতির উপর ন্যস্ত থাকবে বলে জানিয়েছেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম। তিনি জানান, সুপ্রিমকোর্টের সঙ্গে পরামর্শ করেই রাষ্ট্রপতির সিদ্ধান্ত নেবেন।

মঙ্গলবার দুপুরে নিজ কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে রাষ্ট্রের সর্বোচ্চ আইন কর্মকর্তা এ কথা বলেন। অধঃস্তন আদালতের নিয়ন্ত্রনের বিষয়ে গেজেট নিয়ে এই সংবাদ সম্মেলন করেন তিনি।

সুরেন্দ্র কুমার সিনহা প্রধান বিচারপতি থাকাকালে অধঃস্তন বিচারকদের শৃঙ্খলাবিধি নিয়ে সরকারের সঙ্গে সুপ্রিম কোর্টের টানাপড়েন তৈরি হলেও তার পদত্যাগের পর আইন মন্ত্রণালয় থেকে পাঠান খসড়া সুপ্রিম কোর্ট গ্রহণ করেছে।

সিনহার আমলে বেশ কয়েকবার সময় নেয়ার পর আইন মন্ত্রণালয় থেকে পাঠান খসড়া ফিরিয়ে দিয়েছিল আপিল বিভাগ। তবে অস্থায়ী প্রধান বিচারপতি আবদুল ওয়াহ্‌হাব মিয়া ও অন্যান্য বিচারপতির সঙ্গে আইন মন্ত্রীর আলোচনায় বিষয়টি নিয়ে একটি সমঝোতায় আসে দুই পক্ষ।

এক প্রশ্নের জবাবে অ্যাটর্নি জেনারেল বলেন, গেজেট প্রকাশে তিনি অকেটাই ভারমুক্ত হয়েছেন। তিনি বলেন, ‘যেহেতু শাসন বিভাগ ও বিচার বিভাগের মাঝখানে আমাকেই অবস্থান নিতে হয়। যাকে বলে সেতুবন্ধন। সুতরাং সুপ্রিম কোর্টের একটি আগ্রহ ছিল এটা এতো দিন হচ্ছে না কেন। আর বারে বারে আমাকে সময় নিতে হয়েছে। সেটা আমার জন্য নিশ্চয় বিব্রতকর ছিল। আমার সেই বিব্রতকর অবস্থার পরিসমাপ্তি হলো। আগামীকাল আদালতের কাছে একটা দরখাস্ত দিয়ে দাখিল করব।’

আগের খসড়া এবং এখনকার গেজেটের মধ্যে মূল তফাতটা কী-জানতে চাইলে মাহবুবে আলম বলেন, ‘প্রাক্তন প্রধান বিচারপতি যেটা চেয়েছিল, আমি যতদূর বুঝতে পেরেছি, সেটা হলো সমস্ত ক্ষমতাটা সুপ্রিমকোর্টের হাতেই থাকবে। সেটা তো সংবিধানবিরোধী একটা অবস্থান। সংবিধানে আছে রাষ্ট্রপতি করবেন কিন্তু সুপ্রিমকোর্টের সঙ্গে পরামর্শ করে করবেন।’

স্বাধীনবাংলা২৪.কম/এমআর

আরো খবর »