গাইবান্ধায় ছাত্রীকে ধর্ষণের ঘটনায় গ্রেফতার সেই শিক্ষক বরখাস্ত

Feature Image

জেলা প্রতিনিধি, স্বাধীনবাংলা২৪.কম

গাইবান্ধা থেকে ফরহাদ আকন্দ: গাইবান্ধা জেলার সুন্দরগঞ্জ উপজেলার চন্ডিপুর এটিএম বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির এক ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে গ্রেফতার হওয়া শিক্ষক সাজ্জাদুল করীম টিপুকে বরখাস্ত করা হয়েছে। ম্যানেজিং কমিটির সিদ্ধান্ত অনুযায়ী তাকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়।

বরখাস্তের বিষয়ে ওই বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুর রাজ্জাক জানান, গত শনিবার (০৯ ডিসেম্বর) ছাত্রীকে ধর্ষণের ঘটনায় অভিযুক্ত আইসিটি শিক্ষক সাজ্জাদুল করীম টিপুর কাছে বরখাস্তের চিঠি পাঠানো হয়েছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, গত ফেব্রুয়ারি মাসের মাঝামাঝি সময়ে এটিএম বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের আইসিটি শিক্ষক সাজ্জাদুল করীম টিপু সাজেশন দেওয়ার কথা বলে ছুটির পর ওই ছাত্রীকে বিদ্যালয়ে থাকতে বলে।

পরে তাকে বিদ্যালয়ের একটি কক্ষে নিয়ে গিয়ে ধর্ষণ করে এবং ভিডিও ধারণ করে। পরে ধর্ষণের ভিডিও ফাঁস করার ভয় দেখিয়ে তাকে আবারও ধর্ষণ করে বলেও অভিযোগ পাওয়া যায়।

যৌন নির্যাতনের স্বীকার ওই ছাত্রীর বাবা ও মা অভিযোগ করে বলেন, এ বিষয়ে গত ২৯ নভেম্বর ছাত্রীর বাবা প্রধান শিক্ষকের কাছে লিখিত অভিযোগ করেন। তবে অভিযুক্ত শিক্ষকের বিরুদ্ধে কোন প্রকার ব্যবস্থা না নিয়ে আমাদের মেয়েকে স্কুল থেকে ছাড়পত্র দিয়ে বের করে দেয়। পরে বাধ্য হয়ে ছাড়পত্র নিয়ে এলাকা ছেড়ে সুন্দরগঞ্জে এক আত্মীয়র বাসায় আশ্রয় নেয় আমাদের মেয়ে।

বিষয়টি এলাকায় জানাজানি হলে বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসী ওই লম্পট শিক্ষকরে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে বিদ্যালয়ের শ্রেণিকক্ষে তালা ঝুলিয়ে বিক্ষোভ মিছিল করে।

পরে ওই ছাত্রীর বাবা থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে সাজ্জাদুল করীম টিপুর বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন। রবিবার (৩ ডিসেম্বর) সন্ধ্যায় গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ উপজেলা শহর এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। বর্তমানে তিনি গাইবান্ধা জেলা কারাগারে রয়েছেন।

বরখাস্তের বিষয়ে ওই বিদ্যালয়ের  ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি রাশেদুল ইসলাম মুকুল মিয়া বলেন, সকল বিধি মোতাবেক অভিযুক্ত ওই শিক্ষককে বরখাস্ত করা হয়েছে।

স্বাধীনবাংলা২৪.কম/এমআর

আরো খবর »