ইবিতে মধ্যরাতে ককটেল বিস্ফোরণ : আতঙ্কিত শিক্ষার্থীরা

Feature Image

ইবি প্রতিনিধি, স্বাধীনবাংলা২৪.কম

এ আর রাশেদ: ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইবি) লালন শাহ হল এলাকায় মধ্যরাতে হাফডজন ককটেল বিস্ফোরন ঘটেছে। গতকাল মঙ্গলবার রাত ১২ টা ৫০ থেকে ১টা ৭ মিনিটের মধ্যে পরপর ৬ টি ককটেল বিস্ফোরন ঘটে বলে জানা যায়। ককটেলের বিকট শব্দে আতঙ্কিত হয়ে হয়ে পড়ে বিশ্ববিদালয়ের আবাসিক হলগুলোর শিক্ষার্থীরা।

প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, মুক্তিযোদ্ধার এক সন্তানকে মারধোর করে হল থেকে বের করে দেওয়ার ঘটনাকে কেন্দ্র করে গতকাল মঙ্গলবার বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি শাহিনুর রহমান এবং সাধারণ সম্পাদক জুয়েল রানা হালিমের অনুসারী শাকিল আহম্মেদ সুমন গ্রুপের কর্মীদের মধ্যে দিনভর উত্তেজনা চলে।

পরে রাত ১২টা ৫০ মিনিটের দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের লালন শাহ হলের পিছনে পরপর দুইটি ককটেলের বিস্ফোরন ঘটে। এরপরেই বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি গ্রুপের দুইজন কর্মী হলের ছাদে ওঠে বলে নির্ভরযোগ্য একটি সূত্র নিশ্চিত করেছে।

হলের বাইরে ককটেল বিস্ফোরনের ফলে জবাবে তারা হলের ছাদে উঠে পরপর চারটি ককটেলের বিস্ফোরন ঘটায়। এসময় লালন শাহ হলসহ অন্যান্য আবাসিক হলের শিক্ষার্থীদের মধ্যে আতঙ্কিত ছড়িয়ে পড়ে।

এ বিষয়ে লালন শাহ হলের এক আবাসিক শিক্ষার্থী জানান, প্রথমে শব্দ শুনে মনে করছিলাম রাস্তায় গাড়ির টায়ার বাস্ট হয়েছে। কিন্তু পরে আরো বিকট একটি শব্দ হয়। কি হয়েছে বিষয়টি জানার জন্য রুমের বাইরে যায়। কিন্তু এর কিছুক্ষণ পরেই পরপর চারবার বিকট বিষ্ফোরণের শব্দ হলে আমি ভয়ে রুমে চলে যাই।

ওই হলে অবস্থানকারী বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি শাহিনুর রহমান বলেন, ‘এ বিষয়ে আমি কিছুই জানি না। আমি ঘুমিয়ে ছিলাম। সকালে উঠলে নেতাকর্মীরা আমাকে বিষয়টি অবগত করে।’

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী প্রক্টর সহকারী অধ্যাপক সাজ্জাদ হোসেন বলেন, ‘গতকাল দুপুরে মুক্তিযোদ্ধার ওই সন্তানের বিষয়টি আমি শুনেছি কিন্তু রাতের ঘটনাটি আমার জানা নাই। আমি এখন ক্যাম্পাসের বাইরে। বিষয়টি আরো খোঁজ নিয়ে দেখছি।’

স্বাধীনবাংলা২৪.কম/এমআর

আরো খবর »