মায়ের বয়স ২৬ বছর আর মেয়ের ২৪!

Feature Image

বিশ্ব রেকর্ড। দীর্ঘ সময় সংরক্ষণের পর জন্ম নেওয়ার রেকর্ড। ব্যাপার বুঝলেন না তো? মায়ের থেকে মাত্র এক বা দেড় বছরের ছোটো তার মেয়ে। ২৪ বছর ধরে জন্মের অপেক্ষায় ছিল একটা ভ্রূণ। এই ভ্রূণের জন্ম হয়েছিল ১৯৯২ সালের অক্টোবর মাসে। ২৪ বছরের পরে সেই ভ্রূণ থেকেই জন্ম নিল এক শিশু কন্যা। কন্যার মা-বাবা হলেন ২৬ বছরের টিনা আর ৩৩ বছরের বেনঞ্জামিন গিবসন। যুক্তরাষ্ট্রের ন্যাশভিলের টেনেসির বাসিন্দা তারা।

জন্মের সময় শিশুটির ওজন ছয় পাউন্ড আট আউন্স, উচ্চতা ২০ ইঞ্চি হয়েছে। নাম রাখা হয়েছে ইম্মা ওরেন। ইম্মার জন্ম হয় ২০১৭ সালের ২৫ নভেম্বর। আর ইম্মার মা টিনা গর্ভবতী হন এই বছরই মার্চ মাসে।

বেঞ্জামিন বলেন, মেয়েকে পেয়ে তিনি খুব খুশি। ইম্মাকে দেখতে যেন একদম তারই মতো। একটা আশ্চর্য ঘটনা।

বিষয়টা হল ইন ভিট্রো ফার্টিলাইজেশন। বেঞ্জামিনের সিস্টিক ফাইব্রোসিস থাকার কারণে টিনা আর বেঞ্জামিন সন্তান ধারণে অক্ষম ছিলেন। তারা সন্তানের অভাব ভুলতে অন্যের শিশু প্রতিপালনের কাজ করতেন। একদিন টিনার বাবার কাছ থেকে তারা জানতে পারেন ভ্রূণ দত্তক নেওয়ার ব্যাপারে। প্রথমে কথাটা এড়িয়ে গেলেও পরে তা ভাবিয়ে তোলে তাদের। তারা যোগাযোগ করেন নক্সভিলের ন্যাশনাল এমব্রায়ো ডোনেশন সেন্টারে। ইন ভিট্রো ফার্টিলাইজেশন বা কৃত্রিম উপায়ে ভ্রূণ ধারণের জন্য টিনা সক্ষম কিনা সেখানে প্রথমে তা পরীক্ষা করে দেখা হয়। তারপর সংরক্ষিত অনেক ভ্রূণের মধ্যে থেকে তাদের একটা নির্বাচন করতে বলা হয়। তারা এই ভ্রূণটা নির্বাচন করেন।

ইউনিভার্সিটি অব টেনেসি প্রেস্টন মেডিকেল লাইব্রেরির খবর অনুযায়ী, ইম্মাই হল লঙ্গেস্ট ফ্রোজেন ইব্রায়ো থেকে জন্ম নেওয়া শিশু। এই নিরিখে ইম্মা বিশ্ব রেকর্ডও করেছে।-ডেইলি মেইল

আরো খবর »