পল্লী গ্রামের শিক্ষাসেবার নতুন দিগন্ত

Feature Image

 

হুমায়ুন কবির: কু্ষ্টিয়া কুমারখালী পান্টি আনোয়ারা বেগম শিক্ষার্থী কল্যাণ ট্রাস্টের বৃত্তি পরীক্ষা গতকাল পান্টি মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয় ও পান্টি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে অনুষ্ঠিত হয়েছে।
ট্রাস্টের চেয়ারম্যান সাবেক জেলা পরিষদ প্রশাসক বীর মুক্তিযোদ্ধা ও বিশিষ্ট শিক্ষানুরাগী জাহিদ হোসেন জাফর এর একান্ত প্রচেষ্টায় আনোয়ারা বেগম শিক্ষার্থী কল্যাণ ট্রাস্টের এই শিক্ষাবৃত্তির কার্যক্রম অনুষ্ঠিত হয়ে আসছে। এ ধরনের শিক্ষা বৃত্তি পরীক্ষার তৃতীয়বারের মত অনুষ্ঠান করতে পেরে আয়োজন আয়োজন কর্মীটি অনেকটাই গর্বিত মনে করছেন বলে জানান।
আনোয়ারা বেগম শিক্ষার্থী কল্যাণ ট্রাস্টের বৃত্তি পরীক্ষা কুষ্টিয়া জেলার ব্যাপক আলোড়ন সৃষ্টি করেছে। এবারের ২০১৭ সালের পরীক্ষায় ১১৪৪ জন শিক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করছে। জায়গা সংকুলান না হওয়ায় পান্টি মাধ্যমিক বিদ্যালয় ও পান্টি মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয় দুটি ভেনুতে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

আনোয়ারা বেগম শিক্ষার্থী কল্যাণ ট্রাস্টের শিক্ষাবৃত্তির কেন্দ্র সচিব পান্টি ডিগ্রী কলেজের অধ্যক্ষ মোঃ কামাল উদ্দীন জানান, ব্যাপক আলোড়ন সৃষ্টি করেছে বলেই আজকের শিক্ষার্থীর জোয়ার বয়ে আসছে, সেই সাথে অভিভাবকরা তাদের সন্তানকে সুশিক্ষায় শিক্ষিত করতে এবং প্রতিযোগিতামূলক শিক্ষা অংশগ্রহণ করে নিজেকে মেধাবী শিক্ষার্থী হিসাবে প্রতিষ্ঠিত করতেই শিক্ষাবৃত্তি অংশগ্রহণ করেছে।
সকাল ১১ টা থেকে দুপুর ২ টা পর্যন্ত তিন ঘণ্টাব্যাপী পরীক্ষায় ১১৪৪ জন পরীক্ষার্থী অংশ গ্রহন করে।
আনোয়ারা বেগম শিক্ষার্থী কল্যাণ ট্রাস্টের সভাপতি জানান, গ্রামীণ শিক্ষা ব্যবস্থার উন্নয়ন ও মেধা তালিকায় তারা যেন প্রতিযোগিতায় টিকে থাকতে পারে এমনটা উদ্যোক্তা কে সামনে রেখে এই প্রতিযোগিতার ব্যবস্থা করা হয়েছে। তিনি আরো বলেন, শিক্ষাই জাতির মেরুদন্ড, আমি একজন শিক্ষক হিসাবে শিক্ষিত জাতি হিসাবে যদি ছাত্র-ছাত্রীকে প্রকৃত মেধার গড়ে তুলতে পারি তাহলেই এলাকার উন্নয়ন সম্ভব হবে। তৃতীয়বারের মতো এই শিক্ষাবৃত্তি অনুষ্ঠানের কার্যক্রম পরিচালনা করতে পেরে আমি এলাকার লোকদের কাছে কৃতজ্ঞতা চিত্তে স্মরণ করছি।

এদিকে আনোয়ারা বেগম শিক্ষা কল্যাণ বৃত্তি পরীক্ষার অনুষ্ঠানকে কেন্দ্র করে পান্টি জারে যেন সেজেছে নতুন সাজে। একদিকে অভিভাবক অপরাধীকে উৎকণ্ঠা এবং শিক্ষার্থীদের মিলন মেলায় পরিণত হয়েছিল পান্টি মাধ্যমিক বিদ্যালয় ও পান্টি মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয় কেন্দ্র।

অপরদিকে পরীক্ষা চলাকালীন সময়েও অভিভাবক আব্দুল জব্বার জানান, পান্টি এলাকায় যে উদ্যোগটি গ্রহণ করা হয়েছে এরকম প্রতিটা ইউনিয়ন পর্যায়ে আয়োজন করলে শিক্ষার্থীদের আরো বেশি মেধার উন্নয়ন হবে বলে আশা করি।

আরো খবর »