অভিবাসীদের রক্ষায় বিশ্বের প্রতি পোপের আহ্বান 

Feature Image

স্বাধীনবাংলা২৪.কম

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: নিজ দেশ থেকে বিতাড়িত লাখ লাখ অভিবাসীদের রক্ষায় বিশ্বের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন রোমান ক্যাথলিক খ্রিষ্টানদের প্রধান ধর্মগুরু পোপ ফ্রান্সিস।

রোববার ভ্যাটিক্যানে বড়দিনের প্রার্থনা অনুষ্ঠানে এই আহ্বান জানান তিনি। খ্রিষ্টমাস ইভ মাসে বাইবেলের ঘটনা উল্লেখ করে মেরি ও জোসেফের সঙ্গে অভিবাসীদের তুলনা করেন ফ্রান্সিস।

বাইবেলের আলোকে ফ্রান্সিস বর্ণনা করেন, কেন মেরি ও জোসেফ নাজারেথ থেকে বেথেলহেমে যেতে বাধ্য হয়েছিলেন কিন্তু কোথাও তাদের ঠাঁই হয়নি। তিনি আরো বলেন, নিষ্পাপের রক্তে স্নাত হতে কোনো সমস্যা নেই- এমন সব নেতাদের কাছ থেকে অনেক অভিবাসী পালিয়ে যেতে বাধ্য হচ্ছে।

আর্জেন্টাইন ধর্মগুরু ৮১ বছর বয়সি পোপ ফ্রান্সিস নিজেও ইতালীয় অভিবাসীদের বংশধর। রোববার সন্ধ্যায় ভ্যাটিকান সিটির সেন্ট পিটার’স ব্যাসিলিকায় প্রার্থনাকারীদের উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘জোসেফ ও মেরির পদচিহ্নে লুকিয়ে আছে আরো অনেকের পদচিহ্ন।’

ফ্রান্সিস আরো বলেন, ‘আমরা এমন লাখ লাখ ব্যক্তির কথা বলতে পারি, যারা (দেশ) ছেড়ে যেতে চায় না কিন্তু নিজ ভূমি থেকে তাদের বিতাড়িত করা হয়, প্রিয় মানুষদের ফেলে চলে যেতে হয় তাদের।’ বিশ্বের প্রায় ১২০ কোটি রোমান ক্যাথলিক খ্রিষ্টানদের নেতা ফ্রান্সিস জোর দিয়ে বলেন, বিশ্বাসও এই দাবি করে যে, যেকোনো স্থানে অভ্যর্থিত হবে বিদেশিরা।

প্রধান ধর্মগুরু হিসেবে বিশ্বজুড়ে অভিবাসীদের রক্ষায় শুরু থেকেই কথা বলে আসছেন ফ্রান্সিস। ধর্মগুরু হিসেবে তার প্রাধান্যের শীর্ষে রয়েছে অভিবাসীরা। পোপ ফ্রান্সিস এবারের বড়দিনে যখন অভিবাসীদের রক্ষায় বিশ্বের প্রতি উদাত্ত আহ্বান জানালেন তখন বিশ্বজুড়ে অভিবাসীর সংখ্যা ২ কোটি ২০ লাখ ছড়িয়েছে। সম্প্রতি মিয়ানমার সেনাবাহিনীর দমন-পীড়ন ও নির্যাতনের মুখে লাখ লাখ রোহিঙ্গা প্রাণ বাঁচাতে বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছে।

বাৎসরিক স্কাউট প্যারেড উপলক্ষে রোববার বেথেলহেমের চার্চ অব ন্যাটিভিটির কাছে ম্যানজার স্কয়ারে ধর্মপ্রাণ খ্রিষ্টানরা জমায়েত হন। খ্রিষ্টানরা বিশ্বাস করে, যিজুর জন্মস্থানেই চার্চ অব ন্যাটিভিটি নির্মাণ করা হয়েছে।

এদিকে, যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প জেরুজালেমকে ইসরায়েলের রাজধানী হিসেবে স্বীকৃতি দেওয়ার পর সৃষ্ট উত্তেজনায় এবার ফিলিস্তিনের পশ্চিম তীরে বড়দিনের উৎসব জমেনি। ঘর ছেড়ে বের হয়নি অধিকাংশ খ্রিষ্টান পরিবার।

বড়দিন উপলক্ষে সোমবার বিশ্ববাসীর উদ্দেশে ঐতিহ্যবাহী ‘উরবি এট অরবি’ ভাষণ দেবেন ফ্রান্সিস। তথ্যসূত্র : বিবিসি অনলাইন

স্বাধীনবাংলা২৪.কম/এমআর

আরো খবর »