শৈলকুপায় ১২ মাসে ৮৫ জনের আত্মহত্যা, এর মধ্যে ৪৫ জন নারী ও ৪০ জন পুরুষ

Feature Image

নিজস্ব প্রতিবেদক: আত্মহত্যার ঘটনা বেড়েছে শৈলকুপায়। গত বছর আত্মহত্যা করে ৬৬ জন। এর মধ্যে রয়েছে ৪০ নারী ও ২৬ পুরুষ। গত বছরের তুলনায় চলতি বছরের ১২ মাসে আত্মহত্যার এ চিত্র দীর্ঘ হয়ে দাঁড়ায় ৮৫ জনে। এর মধ্যে ৪৫ জন নারী ও ৪০ জন পুরুষ।

 

দেখা গেছে, পারিবারিক আবদার মেটাতে ব্যর্থ হলে অনেক ছাত্র-ছাত্রী আত্মহত্যার পথ বেছে নিচ্ছে। এছাড়া বাল্যবিয়ের পরে সংসারে তাল মেলাতে না পেরে অনেক কিশোরী আত্মহত্যা করে।

শৈলকুপা পাবলিক হল ও লাইব্রেরির সাধারণ সম্পাদক প্রভাষক স্বপন কুমার বাগচী জানান, বিয়ের পর কনেপক্ষ যৌতুক দিতে না পারলে স্বামী-শ্বশুর-শাশুড়ির নির্যাতন, বাবা-মা তাদের স্কুল পড়ূয়া সন্তানদের আবদার মেটাতে ব্যর্থ হলে এবং বাল্যবিয়ের ফলে অপরিণত বয়সে সংসারের বোঝা সামলাতে না পেরে আত্মহত্যার পথ বেছে নেয়। আত্মহত্যার সঠিক কারণ উদ্ঘাটন করে সবার মাঝে সচেতনতা বৃদ্ধি করতে পারলে এ প্রবণতা রোধ করা সম্ভব বলে তার ধারণা।

 

এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা উসমান গনি জানান, প্রশাসনিকভাবে পদক্ষেপ নেওয়ার পরও অতি গোপনে বাল্যবিয়ে হচ্ছে। এছাড়া পারিবারিক অশান্তির কারণেও আত্মহত্যার সংখ্যা বৃদ্ধি পেতে পারে।

 

তিনি বলেন, শৈলকুপায় গত বছরের তুলনায় এ বছর আত্মহত্যার সংখ্যা বৃদ্ধি পাওয়ায় বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে সচেতনতামূলক সভা, গ্রামে গ্রামে উঠান বৈঠকসহ উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে বিভিন্ন পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে। আশা করি, আত্মহত্যার সংখ্যা কমিয়ে আনা সম্ভব হবে।

শৈলকুপা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আলমগীর হোসেন বলেন, গত বছরের তুলনায় চলতি বছরে আত্মহত্যার সংখ্যা বেড়েছে। গত বছর ৬৬ জন আত্মহত্যা করলেও এ বছর এ সংখ্যা বেড়ে ৮৫ জন হয়েছে।

আরো খবর »