চিকিৎসকের অবহেলায় শিশুর মৃত্যু !

Feature Image

স্বাধীনবাংলা২৪.কম

সাতক্ষীরা: সাতক্ষীরায় চিকিৎসকের অবহেলায় এক কন্যাশিশুর মৃত্যু হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। বৃহস্পতিবার ভোর ৪টার দিকে সাতক্ষীরা শিশু হাসপাতালে শিশুটি মারা যায়।

জন্মের ১৩ দিনের মাথায় মারা যাওয়া শিশুর নাম শর্মিষ্ঠা দেবনাথ। সে সাতক্ষীরার আশাশুনি উপজেলার বুধহাটা গ্রামের সুমঙ্গল দেবনাথের মেয়ে ছিল।

শিশুর মা বুধহাটা গ্রামের রেখা দেবনাথ জানান, সাত দিন বয়সি মেয়ে শর্মিষ্ঠা নিউমোনিয়ায় আক্রান্ত হওয়ার পর তাকে গত ২৭ ডিসেম্বর সাতক্ষীরা শিশু হাসপাতালের ১নং কেবিনে ভর্তি করা হয়। শিশু রোগ বিশেষজ্ঞ ডা. এস এম জাকির হোসেন তার মেয়ের চিকিৎসক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছিলেন।

সুমঙ্গল দেবনাথ জানান, তার মেয়ে শর্মিষ্ঠার শারীরিক অবস্থা নিয়ে তারা উদ্বিগ্ন ছিলেন। এজন্য তারা ডাক্তারের কাছে খুলনায় স্থানান্তরের প্রয়োজন আছে কি না, তা জানার জন্য কয়েকবার জিজ্ঞাসা করেছিলেন। এরপরও তারা স্থানান্তরের পরামর্শ দেননি। বুধবার দিবাগত রাত আড়াইটার দিকে শর্মিষ্ঠার অবস্থার চরম অবনতির বিষয়টি সেবিকাদের মাধ্যমে নিশ্চিত হয়ে তিনি নিজে ডা. এস এম জাকির হোসেনকে মোবাইলেফোনে বারবার জানানোর চেষ্টা করেও ব্যর্থ হন। জাকির হোসেনের মোবাইলফোন বন্ধ পান সংশ্লিষ্ট কর্তব্যরত সেবিকারাও। এক পর্যায়ে বৃহষ্পতিবার ভোর ৪টার দিকে শর্মিষ্ঠার মৃত্যু হয়।

তিনি অভিযোগ করে বলেন, ‘অবস্থার অবনতির পরপরই সুচিকিৎসা দেওয়া গেলে শর্মিষ্ঠাকে বাঁচানো যেত। ডাক্তারের অবহেলায় তার মৃত্যু হয়েছে।’

বৃহস্পতিবার সকালে যোগাযোগ করা হলে সাতক্ষীরা শিশু হাসপাতালের চিকিৎসক ডা. এস এম জাকির হোসেন বলেন, ‘হায়াত-মওতের ওপর আল্লাহর হাতে। যথাযথ চিকিৎসার ব্যবস্থা আগে থেকেই করা ছিল। মোবাইলফোন সাইলেন্ট থাকার কারণে রিসিভ করা সম্ভব হয়নি। কোনো রোগীকেই চিকিৎসক মারতে চায় না।’

স্বাধীনবাংলা২৪.কম/এমআর

আরো খবর »