ফয়সাল হাবিব সানির কবিতা কেউ কি প্রেম জানো?

Feature Image

 

অামি নদীর কাছে শুনতে গেলুম,
নদী, প্রেম জানো?
নদী তার প্রশস্ত বুকের সমস্ত তরল অামার গরল উষ্ণ তপ্ত বুকের অভ্যন্তরে উগড়ে বলে দিলো,
এই নাও প্রেম!
প্রেম তার থেকেও তরল, অারও কোমল, অারও বেশি স্পন্দমান, অারও বেশি অারও প্রকম্পিত!
অামি পাহাড়ের কাছে গিয়ে হাত পাতলুম,
পাহাড়, প্রেম জানো?
পাহাড় মস্ত বড়ো পাথরের ভারে নত হয়ে অামায় বললো,
এই নাও প্রেম!
প্রেম এর থেকেও বেশি ভারি, সুবিশাল পাথরের থেকেও অারও বোঝা তার! অনেক অনেক অারও অনেক বেশি শক্ত, অনেক…
বেশ, বেশ ভারি! কি যে ওজন তার!!
অামি ঝরনার কাছে গিয়ে দাঁড়ালুম,
ঝরনা, প্রেম জানো?
ঝরনা অাড়নয়নে তাকিয়ে বলে দিলো,
এই নাও প্রেম!
প্রেম যতোটা ভেজায়, তারও বেশি অারও বেশি অারও বেশি পোড়ায়, খুব খুব খুউব খু-উ-ব বেশি পোড়ায়!
অামি অাকাশের দিকে হাত বাড়িয়ে জিজ্ঞেস করলুম,
অাকাশ, প্রেম জানো?
অাকাশ কিছুটা মেঘ ছিটিয়ে বললো,
এই নাও প্রেম!
অামি মেঘকে প্রেম মনে করে অালেয়ার মতো ধরতে যেয়ে কতোবার যে ব্যর্থ হলুম তার কোনো ইয়ত্তাই নেই!
হয়তো প্রেমও এমনিভাবেই ব্যর্থ হয়, বারবার ব্যর্থ হয়, বারংবার ব্যর্থ হয়; নতুবা কেবলই অামরাই ব্যর্থ হয়!
এবার অামি প্রেমে হাত পেতে বললাম,
প্রেম, প্রেম জানো?
প্রেম অামার ওষ্ঠ্যে তার মধ্য অাঙ্গুল ছুঁয়ে বললো,
ধূর বোকা! প্রেম বলে কিচ্ছু নেই!!
ওটা মানুষের সহজাত কল্পনা।
অামি গোগ্রাসে প্রেমের কথা অবিশ্বাস করে তরুণীকে বললাম,
তরুণী, প্রেম জানো?
তরুণীটি অামার ঘাড়ে ওর হাত রেখে বললো,
`ভালোবাসি’!
তারপর সেই তরুণীটি অামার বুকের ডানপাশে ওর নখের খোঁচায় গোলাপ ঠোঁটে অামার সর্বস্বব্যাপী হাসির ফিনকি উড়িয়ে বললো,
ধুত্তরী কি যে পাগল একটা! কিচ্ছুই যেন বোঝো না তুমি!!
এই যে অামার জন্য তোমার ভেতরে এতোদিন ধরে যে পোড়ার দাগ অদৃশ্য অাগুনে স্ফূরিত হয়েছে, যুগ যুগ ধরে যে অারাধ্য ভালোবাসা ভীষণ রকম তুমুলভাবে প্রচণ্ড থেকে অারও প্রচণ্ডতরভাবে কি সকরুণ মূর্ছনায় শুধু, কেবলই ভুগিয়েছে তোমায়-
`তার নাম প্রেম,
তারই তো নাম প্রেম’!

আরো খবর »