গান শুনে শিলাইদাহ শিল্পীদের বকশিশ দিলেন রাষ্ট্রপতি

Feature Image

 

বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের স্মৃতিবিজড়িত কুষ্টিয়ার শিলাইদহ কুঠিবাড়িতে এসে কবির নিজ হাতে লাগানো শতবর্ষী সেই বকুল গাছটি ছুঁয়ে দেখলেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ।
কয়েক মিনিট ধরে তিনি বকুল গাছটিকে নেড়ে-চেড়ে দেখেন। অপলক দৃষ্টিতে কিছু সময় চেয়ে থাকেন গাছটির দিকে। এরপর শান বাঁধানো সেই পুকুর পাড়ে গিয়ে বসেন। সেখানে সপরিবারে বসে স্থানীয় শিল্পীদের পরিবেশনায় ৪টি রবীন্দ্রসংগীত শোনেন রাষ্ট্রপতি।

শনিবার দুপুর ১টার দিকে ঢাকা থেকে হেলিকপ্টারযোগে কুষ্টিয়ার উদ্দেশে রওনা হন রাষ্ট্রপতি। দুপুর ১টা ৪৫ মিনিটে সপরিবারে কুষ্টিয়া স্টেডিয়াম হেলিপ্যাডে অবতরণ করেন রাষ্ট্রপতি।
সেখান থেকে সড়ক পথে কুষ্টিয়া সার্কিট হাউসে আসেন। মধ্যাহ্নভোজ শেষে কুষ্টিয়া সার্কিট হাউস থেকে সড়ক পথে শিলাইদহের কুঠিবাড়ির উদ্দেশে যাত্রা করেন। বিকেল ৪টার দিকে সপরিবারে রবীন্দ্রনাথের স্মৃতিবিজড়িত শিলাইদহ কুঠিবাড়িতে পৌঁছান রাষ্ট্রপতি।

এ সময় প্রত্নতত্ত্ব অধিদফতর ও উপজেলা প্রশাসনের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তরা রাষ্ট্রপতিকে অভ্যর্থনা জানান। রাষ্ট্রপতি পরিদর্শন বইতে স্বাক্ষর করেন এবং সপরিবারে কুঠিবাড়ি পরিদর্শন করেন।
পরিদর্শন শেষে রাষ্ট্রপতি পুকুর পাড়ে একটি বকুল গাছের চারা রোপণ করেন। এ সময় তিনি বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের নিজ হাতে লাগানো শতবর্ষী সেই বকুল গাছটিকে কয়েক মিনিট ধরে ছুঁয়ে দেখেন। এরপর শান বাঁধানো সেই পুকুর পাড়ে নির্ধারিত আসনে বসে স্থানীয় শিল্পীদের পরিবেশনায় রবীন্দ্রসংগীত উপভোগ করেন।
‘যখন পড়বে না মোর পায়ের চিহ্ন এ বাটে’ শিল্পীদের সমবেত কণ্ঠে এ উদ্বোধনী সংগীতের মধ্য দিয়ে শুরু হয় গান। রাষ্ট্রপতি একে একে ৪টি রবীন্দ্রসংগীত শোনেন। গান শুনে মুগ্ধ হয়ে তিনি ছয়জন শিল্পীর প্রত্যেককে ১০ হাজার টাকা করে বকশিশ দেন।
কুঠিবাড়ি পরিদর্শনের সময় রাষ্ট্রপতির সঙ্গে তার স্ত্রী মিসেস রাশিদা খানম, রাষ্ট্রপতির ছেলে ও কিশোরগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ সদস্য রেজওয়ান আহাম্মদ তৌফিক, মেয়ে মিসেস স্বর্ণা হামিদ এবং মেয়ের জামাতা উপস্থিত ছিলেন।
এ সময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন- আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহাবুব-উল হানিফ, স্থানীয় সংসদ সদস্য আব্দুর রউফ, কুষ্টিয়ার জেলা প্রশাসক জহির রায়হান, পুলিশ সুপার এসএম মেহেদী হাসান, কুষ্টিয়া জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সদর উদ্দিন খান, সাধারণ সম্পাদক আজগর আলী ও কুষ্টিয়া জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান হাজী রবিউল ইসলাম প্রমুখ।
ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের চতুর্থ সমাবর্তনে যোগ দিতে শনি ও রোববার দু’দিনের সফরে সপরিবারে কুষ্টিয়ায় যান রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ। কুঠিবাড়ি পরিদর্শন শেষে সন্ধ্যায় লালন একাডেমি পরিদর্শন করেন এবং লালন একাডেমির অডিটরিয়ামে বিভিন্ন শিল্পীর পরিবেশিত লালনের গান উপভোগ করেন তিনি।
এরপর রাত ৮টায় কুষ্টিয়া সার্কিট হাউসে স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তি ও পেশাজীবীদের সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করার কথা রয়েছে রাষ্ট্রপতির। আগামীকাল ৭ জানুয়ারি রোববার রাষ্ট্রপতি দুপুর সাড়ে ১২টায় ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের চতুর্থ সমাবর্তনে যোগদান করবেন রাষ্ট্রপতি।

আরো খবর »