দুই সমকামী বাবার অষ্টাদশী কন্যার মাসিক হাতখরচ ৫ লাখ!

Feature Image

আমাদের নিত্যদিনের ব্যস্ত জীবনের সামনে ব্যারি ড্রেউইট বারলো নামের এক অষ্টাদশীকে ‘বাস্তব’ বলেই মনে হবে না। কারণ তিনি হাতখরচ হিসেবে মাসে পান মাত্র ৫ লাখ টাকা। সাজ-প্রসাধনের জন্য পান আলাদা করে ১২ লাখ টাকা। সোনারও নয়, প্ল্যাটিনামের চামচ জিভে নিয়ে তার জন্ম।

মাত্র আঠারো বছরে পা রাখা কিশোরী স্যাফরন ড্রেউইট-বারলো কোনও হলিউড তারকা নন। তিনি দুই সমকামী বাবা ব্যারি ও টোনি ড্রেউইট বারলোর সারোগেট সন্তান। জন্ম থেকেই মেয়েকে তারা আদরের আতিশয্যে একেবারে ভরিয়ে রেখেছেন বললেও কম বলা হয়।

তার হাতের আংটিটির দামই ৩ কোটি টাকার বেশি। একদিন যে পোশাক পরেন সেটি আর দ্বিতীয়বার গায়ে চড়ান না তিনি। প্রতিদিন নতুন পোশাকের পাশাপাশি নতুন জুতা ও ব্যাগ তার জন্য বরাদ্দ থাকে। শুধু তাই নয়, প্রাপ্তবয়স্ক হবার আগেই স্যাফরন শুরু করেছেন ব্যবসা। ত্বকের প্রসাধনের সেই ব্যবসা করার মূলধনও চোখ কপালে তোলার মতো। প্রায় ৮ কোটি টাকা।

এমন মেয়ে আঠারো বছরে পা রাখলে দুই বাবা যে বিশেষ উপহার দেবেন তাতে আর আশ্চর্য কী। একটি সাদা ও একটি কালো, দু’টি মহার্ঘ্য রেঞ্জ রোভার তাকে উপহার দেওয়া হয়েছে। সব মিলিয়ে ১০ কোটি টাকা যার মূল্য। কেবল তাই নয়, আঠারোতম জন্মদিনে যাতে সে বন্ধুদের সঙ্গে পানাহার করতে পারে তাই ফ্লোরিডা থেকে সকলকে নিয়ে বিমানে করে স্যাফরন সোজা চলে যায় ইংল্যান্ডে। কেননা ফ্লোরিডায় ২১ বছর না হলে মদ্যপান করা যায় না।

ব্যারি ও টোনি দু’জনেই ধনকুবের। তাদের বাড়ির দামই ৪২ কোটি টাকা। সেখানে রয়েছে ১০টি বেডরুম। প্রতিবেশী হিসেবে রয়েছে দুনিয়া কাঁপানো পপ তারকা রেহানা। ব্যারি-টোনির ‘লার্জার দ্যান লাইফ’ জীবনের আরও রহস্য জানানো বাকি আছে। এবার সেটা জানানো যাক। স্যাফরন মোটেই একা নন, তারা সবশুদ্ধ ৫ ভাইবোন। সুতরাং বুঝতেই পারছেন, বাকিদের ক্ষেত্রেও কেমন খরচ হয় তাদের বাবাদের।

আরো খবর »