সূর্যের দেখা মিললেও কনকনে ঠান্ডা

Feature Image

স্বাধীনবাংলা২৪.কম

দিনাজপুর: শৈত্যপ্রবাহ আর হিমেল বাতাস থাকলেও তাপমাত্রা কিছুটা বেড়েছে দিনাজপুরে । টানা ছয় দিন পর আজ মঙ্গলবার সকালে দেখা গেছে সূর্যের মুখ। তাপমাত্রা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৪ দশমিক ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াসে।

সকালে সূর্যের মুখ দেখা দেয়ায় জনজীবন স্বাভাবিক হতে শুরু করেছে। সোমবার জেলার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ৩ দশমিক ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস। গত ৫ বছরের মধ্যে এটিই ছিল সর্বনিম্ন তাপমাত্রা।

দিনাজপুর আঞ্চলিক আবহাওয়া অফিসের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা তোফাজ্জল হোসেন জানান, তাপমাত্রা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৪ দশমিক ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াসে। আজ থেকে সূর্যের তাপমাত্রা বাড়বে এবং কনকনে শীত হ্রাস পাবে। তবে শৈত্যপ্রবাহ আরও কয়েক দিন অব্যাহত থাকবে। এ মাসে আরও দুটি শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যাবে জেলার ওপর দিয়ে।

সোমবার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয় ৩ দশমিক ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস। আবহাওয়া অফিসের রেকর্ড অনুযায়ী ১৯৪৮ সালের পর ২০১৩ সালের ৯ জানুয়ারি দিনাজপুর জেলায় রেকর্ড করা হয় ৩ দশমিক ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা।

গত ৩ জানুয়ারি থেকে দিনাজপুরসহ এই অঞ্চলের ওপর দিয়ে মুদু শৈত্যপ্রবাহ শুরুর পর দিনাজপুরে তাপমাত্রা কমতে শুরু করে। গত শনিবার থেকে এই শৈত্যপ্রবাহ তীব্র আকার ধারণ করে।

এদিকে হাড় কাঁপানো তীব্র শীতে এ অঞ্চলের মানুষের স্বাভাবিক জীবনযাত্রা বিপর্যস্ত হয়ে পড়ে। নিম্নআয়ের শ্রমজীবী মানুষ পড়েছেন বিপাকে। প্রচণ্ড শীতে কাজ করতে পারছেন না তারা। বিশেষ করে নির্মাণ ও কৃষি শ্রমিকরা পড়েছেন চরম বিপাকে। তীব্র শীতে অসহনীয় দুর্ভোগে পড়েছেন ছিন্নমূল ও নিম্নআয়ের মানুষ।

দিনাজপুর জেলা প্রশাসক মীর খায়রুল আলম জানান, অসহায় ও ছিন্নমূল মানুষের জন্য ইতিমধ্যে দিনাজপুরে ৭০ হাজার কম্বল বিতরণ করা হয়েছে এবং সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ে আরও ৮০ হাজার শীতবস্ত্র চেয়ে জরুরিবার্তা পাঠানো হয়েছে। তিনি দুস্থ, দরিদ্র ও অসহায় মানুষকে শীত নিবারণের জন্য প্রশাসনের পাশাপাশি বিত্তবানদের এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়েছেন।

স্বাধীনবাংলা২৪.কম/এমআর

Loading...

আরো খবর »